kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

সিইসি বললেন

দু-এক মাসের মধ্যেই বিএনপিসহ রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ

সাভার সংবাদদাতা   

২১ মে, ২০২২ ০৮:৪০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দু-এক মাসের মধ্যেই বিএনপিসহ রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ

কাজী হাবিবুল আউয়াল

আগামী দু-এক মাসের মধ্যে বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দলকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানানো হবে বলে জানিয়েছেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল। গতকাল শুক্রবার সাভারে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে এ কথা বলেন তিনি।

সকাল ১০টায় সাভার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সিইসি ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এ সময় তিনি নিজে একজনের ভোটার তথ্য ফরম পূরণ করেন।

বিজ্ঞাপন

রাজনৈতিক দলগুলোর আস্থা অর্জন সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, ‘আমাদের অনেক কাজ আছে। সেসব কাজের মধ্যে আমরা সিদ্ধান্ত  নেব, আমরা কিভাবে রাজনৈতিক দলগুলোকে আহ্বান করব, তাদের সাথে আলাপ-আলোচনা করব। আমার বিশ্বাস, অচিরেই বিএনপিসহ সকল রাজনৈতিক দলকে আহ্বান জানাব সংলাপে বা আলোচনায় বসার জন্য। ঠিক করে বলতে পারছি না, হয়তো দু-এক মাসের মধ্যেই আমরা আলোচনায় বসতে পারি। ’

এর আগে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সিইসি আরো বলেন, “রাজনীতিবিদরা প্রায়ই বলে থাকেন ‘আমরা যদি ক্ষমতায় যেতে পারি’। আমি অনেক রাজনীতিবিদকে বলেছিলাম, এ কথা এভাবে না বলে আপনি তো বলতে পারেন যে ‘আমরা যদি সরকারের দায়িত্বে যেতে পারি। ’” সিইসি বলেন, “‘আমরা ক্ষমতায় যেতে পারি’ কথাটার মধ্যে একটা অহংবোধ আছে। আমাদের মধ্যে এ ধরনের অহংবোধ গড়ে উঠেছে। কিন্তু  দেশ চালানোটা ক্ষমতা নয়, দায়িত্ব। ক্ষমতা বলে কোনো কিছু নেই। আমরা যদি ক্ষমতাকে দায়িত্বের অর্থে বুঝতে ও পালন করতে পারি, তাহলে আমাদের দায়িত্ববোধ ও সাংস্কৃতিক মনস্তাত্ত্বিক অবস্থা আরো উন্নত হবে। ”

তিনি বলেন, ‘আমরা নতুন একটি কমিশন। আমাদের আন্তরিক প্রত্যাশা যে একটি অংশগ্রহণমূলক প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক, গণতন্ত্র বিকশিত  হোক। ভোটের মাধ্যমে একটা দায়িত্বশীল পার্লামেন্ট গঠিত হোক। পার্লামেন্টে তর্কবির্তকের মাধ্যমে জনগণের অধিকার সংরক্ষিত  হোক। ’

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, ‘ইভিএমের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ইভিএমের সক্ষমতা কতটুকু দরকার, আরো কী কী করা যায়—এসব নিয়ে আমরা আরো কিছু সভা করব। এরপর আমরা ইভিএমের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করব। আমি একা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারব না। ’ তিনি এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে সর্বোচ্চ স্বাধীনতা দেওয়া হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

গতকাল সিইসি ছাড়াও অন্য চার নির্বাচন কমিশনার দেশের চারটি স্থানে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। খুলনা জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটরিয়ামে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবিব খান। নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশিদা সুলতানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম  উদ্বোধন করেন। নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আলমগীর মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। আর নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান শরীয়তপুর জেলায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।



সাতদিনের সেরা