kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

'পদ্মা সেতুর টোল জমিদারদের খাজনা আদায়ের মতো'

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মে, ২০২২ ১৮:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'পদ্মা সেতুর টোল জমিদারদের খাজনা আদায়ের মতো'

'স্বাধীনতার ৫০ বছরেও আমরা একটা সুশৃঙ্খল গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র কাঠামো গড়ে তুলতে পারিনি' মন্তব্য করে গণফোরাম সভাপতি মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেছেন, ভোটারবিহীন ও রাতের ভোটের দুটি নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রের ক্ষমতা দখল করে ক্ষমতাসীনরা জনগণের নিকট জবাবদিহি করতে অপারগ। দায়িত্বশীল জায়গা থেকে বেফাঁস মন্তব্য জনগণ শুনতে চায় না। জনগণ জানতে চায় তাদের টাকায় করা পদ্মা সেতুর আয়-ব্যয়ের পূর্ণাঙ্গ হিসাব। পাশাপাশি জনগণের অর্থায়নে পদ্মা সেতু টোল ফ্রি হওয়ার পরিবর্তে উচ্চমাত্রার টোল ব্রিটিশ আমলের জমিদারের খাজনা আদায়ের মতো জনতার ওপর অত্যাচার করা হবে।

বিজ্ঞাপন

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে গণফোরাম সভাপতির কর্যালয়ে নির্বাহী পরিষদের জরুরি সভায় তিনি এ কথা বলেন।

দেশের বাইরে জনগণের অর্থ পাচার করছে কারা? প্রশ্ন তুলে মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, 'রাষ্ট্রের বিচারহীনতায় সৃষ্টি হয়েছে এই অর্থপাচারকারীরা। এদের শিকড় খুঁজলে পাওয়া যাবে ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকারের প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গকে। আশ্চর্য হয়ে যাই, বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা চুরি হয়, একটা মামলা হয় না। প্রবাসী, গার্মেন্ট শ্রমিক ও কৃষকের টাকায় এ দেশ চলছে, আপনারা সেই টাকা উন্নয়নের নামে লুটপাট করছেন। আপনাদের নানা উপায়ে নির্যাতন থেকে জনগণকে মুক্ত করতে গণফোরাম লড়াই অব্যাহত রাখবে। '

গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, 'কেউ সত্য কথা বললেও মানহানি হয়ে যায় অথচ আপনি মানুষকে প্রতিনিয়ত অপমান-অপদস্থ করে কথা বললে কিছুই হয় না। উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপানো বন্ধ করুন। সিলেটে বন্যায় মানুষ চরম ভোগান্তিতে আছে, খাদ্য ও খাবার পানির সংকট আছে, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ ও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। '

তিনি বলেন, 'প্রাকৃতিক দুর্যোগে কারো হাত নেই। কখন সৃষ্টি হয় কেউ বলতে পারে না। কিন্তু প্রস্তুতি থাকলে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি কম হয়, বড় রকমের বিপর্যয় এড়ানো যায়। জনগণ নিয়ে ইতিবাচক ভাবনা এই অবৈধ ফ্যাসিস্ট সরকারের চিন্তায়ও নেই। জনগণের ভোটাধিকার কিভাবে হরণ করে পুনরায় অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করা যায় সেই ষড়যন্ত্রের নকশা যতই তৈরি করেন না কেন বাংলাদেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে আপনাদের সকল অপকর্মের সমুচিত জবাব দেবে। '

সভায় নেতৃবৃন্দ সংকটকালীন অবস্থা থেকে উত্তরণে সকল গণতন্ত্রমনা রাজনৈতিক দলের ঐক্যের মাধ্যমে গণজাগরণ সৃষ্টি করে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্দলীয় নিরপেক্ষ বা অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের পক্ষে মতামত প্রকাশ করেন।

এ সময় জানানো হয়, আগামী ২১ মে শনিবার বিকেল ৪টায় গণফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যালয় (২/১-এ, আরামবাগ ইডেন কমপ্লেক্স, ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০) নতুন সদস্য সংগ্রহ ফরম উদ্বোধন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাহী পরিষদের সভায় উপস্থিত ছিলেন গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ, মহিউদ্দিন আব্দুল কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহসীন রশিদ ও সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব খান ফারুক।



সাতদিনের সেরা