kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক    

১৭ মে, ২০২২ ০০:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ

ভারতের জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষ এবং প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যম রায় চৌধুরী গতকাল সোমবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন।

বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম জানান, তাঁরা কলকাতায় থাকাকালে বঙ্গবন্ধুর জীবন এবং রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে তাঁর সংগ্রামের ওপর গৌতম ঘোষ নির্মিত ‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক তথ্যচিত্র নিয়ে আলোচনা করেছেন। এ সময় জাতির পিতার কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা ও দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক উপস্থিত ছিলেন।

গৌতম ঘোষ ও সত্যম রায় চৌধুরীর সামনে ডকুমেন্টারিটির রূপরেখা তুলে ধরেন শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।

বিজ্ঞাপন

তাঁরা কলকাতায় ছাত্রজীবনে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রাম ও কষ্টের দিনগুলো বর্ণনা করেন।

এ ছাড়া ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড থেকে রক্ষা পাওয়া জাতির পিতার দুই কন্যা আলোচনায় সর্বশ্রেষ্ঠ নেতার রাজনৈতিক জীবন ও দর্শন তুলে ধরেন।

বৈঠকে গৌতম ঘোষ ও সত্যম রায় চৌধুরী বলেন, তাঁরা রাজধানীর ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেছেন এবং জাদুঘরের প্রতিটি কোনায় ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের নৃশংস নিদর্শন দেখেছেন। সেখানে বিভিন্ন নিদর্শন দেখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এখনো জীবন্ত মর্মে তাঁদের অনুভূতি হয়েছে বলেও প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন তাঁরা।

‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এবং ‘কারাগারের রোজনামচা’ গ্রন্থ দুটিকে মহান ইতিহাস বলেও তাঁরা উল্লেখ করেন। গৌতম ঘোষ ও সত্যম চৌধুরী আরো বলেন, বাঙালির মহান নেতার জীবন ও কর্মের ওপর ডকুমেন্টারি তৈরি করে তাঁরা গর্বিত।

পরে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন এবং তাঁর কলকাতা জীবনের সংগ্রাম সম্পর্কে সাক্ষাত্কার দেন।

ভারতীয় জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষ ‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামে ৩০ মিনিটের একটি প্রামাণ্যচিত্র তৈরি করছেন, যাতে তিনি কলকাতায় থাকাকালে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কাজ তুলে ধরছেন।

৪ এপ্রিল গৌতম ঘোষ কলকাতার মওলানা আজাদ কলেজের একটি শ্রেণিকক্ষে শুটিংয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রটির কাজ শুরু করেন। বঙ্গবন্ধু যখন ১৯৪৫-৪৬ শিক্ষাবর্ষে সেখানে অধ্যয়ন করতেন, তখন এর নাম ছিল ইসলামিয়া কলেজ। সূত্র : বাসস



সাতদিনের সেরা