kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

প্রয়োজনে জীবন দেব : নুর

অনলাইন ডেস্ক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৯:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রয়োজনে জীবন দেব : নুর

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, ছাত্রদের ঢাকা থেকে শুরু করে সারা দেশে হাফভাড়া কার্যকর করতে হবে। ছাত্র আন্দোলনের একজন নেতা কর্মীকেও হয়রানি করা যাবে না। যদি হয়রানি করা হয়, মামলা দেওয়া হয় তবে তার জবাব আমরা রাজপথে এসে দেব। তেলের বর্ধিত দাম কমাতে হবে।

বিজ্ঞাপন

আপনারা ভাবছেন এখানে দাঁড়িয়ে শুধু বক্তব্যই দিয়ে যাচ্ছি, কিন্তু আপনারা আমলে নিচ্ছেন না। কিভাবে আমলে নিতে হয় সেটাও কিন্তু আমাদের জানা আছে।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তিনি এসব কথা বলেন।

নুর বলেন, আমাদের হামলা-মামলা করে থামিয়ে দিতে পারবেন না। আমরা মৃত্যুকে আলিঙ্গন করতে রাজপথে নেমেছি। জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে প্রয়োজনে জীবন দেব।

নুর আরো বলেন, সরকার ২০১১ সালে পঞ্চদশ সংশোধনী করেছিল মাত্র ৯ দিনের ব্যবধানে। মধ্যরাতে কোর্ট বসিয়ে সাংবাদিককে সাজা দিতে পারেন। সেই নির্যাতনকারী ডিসিকে রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করতে পারেন। আর জনগণের জন্য আইন করতে পারবেন না। মশকরা করেন জনগণের সঙ্গে? আপনাদের দাঁত কেলানি অনেক দেখেছে জনগণ, এবার কিন্তু দাঁত তুলে ফেলবে।

তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমে এসেছে। কিন্তু আওয়ামী সরকার কি কমিয়েছে? এরা চোরের দল, চাটার দল। একবার চুরি করতে পারলে, একবার দাম বাড়ালে, সেখান থেকে আর সরে আসে না।

সরকার কিছু উন্মাদকে মন্ত্রণালয়ে জায়গা দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মন্ত্রী বলে শেখ হাসিনা বললে নাকি তিনি আগুনে ঝাঁপ দেবেন। তিনি কি সুস্থ মস্তিষ্কের, আপনাদের কাছে কী মনে হয়? ৩০০ এমপি আছেন, তাদের কজনকে জাতীয়ভাবে মানুষ চেনে?

ইউপি নির্বাচনে কি ধরনের সহিংসতা ঘটেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইউপি নির্বাচনে প্রায় শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে এবং হাজারো মানুষ আহত হয়েছেন। তারপর নির্লজ্জ বেহায়া নির্বাচন কমিশনার বলছেন সহিংসতা বিহীন নির্বাচনের গ্যারান্টি নির্বাচন কমিশন দিতে পারবে না।

বিক্ষোভ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন গণঅধিকার পরিষদের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান, ফারুখ হোসেন, শাকিল উজ্জজামান, সাদ্দাম হোসেন, আবু হানিফ, যুগ্ন সদস্য সচিব মশিউর রহমান,  ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লাহ প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা