kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাস্তায় শিক্ষার্থীরা, নতুন বাজার থেকে রামপুরা অবরুদ্ধ

অনলাইন ডেস্ক   

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৩:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাস্তায় শিক্ষার্থীরা, নতুন বাজার থেকে রামপুরা অবরুদ্ধ

সহপাঠী হত্যার বিচার চেয়ে পথে নেমেছে রাজধানীর বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সকাল থেকে রাজধানীর রামপুরা ব্রিজ এলাকা ও গুলশান লিঙ্ক রোড এলাকায় শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেওয়ায় নতুন বাজার থেকে রামপুরা ব্রিজ পর্যন্ত একপাশের রাস্তায় যানজটে স্থবির হয়ে রয়েছে। অন্যদিকে শিক্ষার্থীরা রামপুরা ব্রিজের ওপর অবস্থান নেওয়ায় মৌচাক, মালিবাগ থেকে রামপুরা পর্যন্ত গাড়ি চলাচল করতে পারছে না। শিক্ষার্থীরা কিছু কিছু গাড়ি ছেড়ে দিলেও সেটা সীমিত ও জরুরি সেবার।

বিজ্ঞাপন

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রামপুরা ব্রিজের ওপর প্রথমে ইমপিরিয়াল কলেজের শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেয়। এরপর আশেপাশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্র-ছাত্রীরা মিছিল সহকারে এসে অবস্থান নেয়। 'আমার ভাইয়ের রক্ত বৃথা যেতে দেব না, উই ওয়ান্ট জাস্টিস' এমন স্লোগানে ছাত্ররা প্রকম্পিত করে তুলছে এলাকা।

এদিকে প্রগতি সরণির গুলশান লিঙ্ক রোড এলাকা অবরুদ্ধ করে রেখেছে গুলশান কমার্স কলেজের শিক্ষার্থীরা। এর ফলে মহাখালীর দিক থেকে যানবাহন নতুন বাজার হয়ে এয়ারপোর্টের দিকে যেতে পারছে না।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার্থীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে যাওয়ার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাঙচুর করা এটা ছাত্রদের কাজ না। এটা কেউ করবেন না দয়া করে। যার যার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরে যান। লেখাপড়া করেন। যারা দোষী অবশ্যই তাদের শাস্তি দেওয়া হবে। তাদের খোঁজে বের করা হয়েছে। আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী অনেক সতর্ক এই ব্যাপারে।  

রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাঙচুর করা ছাত্রদের কাজ না। সড়ক দুর্ঘটনায় দোষীরা শাস্তি পাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না। আমি চালকদেরও বলবো, গাড়ি সতর্কভাবে চালাতে হবে।

শিশু একাডেমি প্রাঙ্গণে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন এবং ধানমন্ডিতে জয়িতা টাওয়ার নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

সম্প্রতি রাজধানীর নাটরডেম কলজের শিক্ষার্থী নাঈম ময়লার গাড়ির চাপায় ও এছাড়াও একরামুন্নেসা স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী মাইন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যায়। এছাড়াও গণমাধ্যমকর্মী আহসান মারা যান ময়লার গাড়ির চাপায়।



সাতদিনের সেরা