kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ মাঘ ১৪২৮। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মুগদায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ : চারজনের সবাই চলে গেলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ০৮:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুগদায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ : চারজনের সবাই চলে গেলেন

রাজধানীর মুগদায় একটি বাসায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুনের ঘটনায় দগ্ধ মা সেফালী বাড়ই (৫৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তাঁর শরীরের ৩৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। সোমবার দিবাগত রাতে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে সেফালী মারা যান। এর আগে এই ঘটনায় আরো তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজধানীর উত্তর মুগদার মাতব্বর গলির একটি ছোট বাসায় মাকে নিয়ে বসবাস করতেন পলাশ বাড়ই (৩৫) নামের এক ব্যক্তি। পলাশের বোন প্রিয়াংকা বাড়ই (৩০) তাঁর স্বামী সুধাংশু মণ্ডল (৩৫) ও সন্তান অড়ব মণ্ডলকে নিয়ে ভাইয়ের বাসায় আসেন।

ডাক্তার দেখাতে তাঁরা ঢাকায় আসেন। এরপর গত ২২ নভেম্বর সকালে নাশতা বানাতে প্রিয়াংকা রান্নাঘরে আগুন জ্বালালে পুরো বাসায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। বিস্ফোরিত হয় গ্যাস সিলিন্ডার। পরে আহতদের হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই দিন রাতে নিজের কাজে বাসার বাইরে ছিলেন পলাশ।

গত শনিবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুধাংশু মণ্ডল (৩৫) মারা যান। তিন দিন আগে মারা যান প্রিয়াংকা ও অড়ব। সুধাংশুর শরীরে ২৫ শতাংশ, প্রিয়াংকার ৭২ শতাংশ, অড়বের শরীরের ৬৭ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

এ ঘটনায় শোকে পাথর হয়ে গেছেন পলাশ। গতকাল মায়ের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন তিনি। পলাশ বলেন, ‘কয়টা দিনে আমার সব অন্ধকার হয়ে গেছে। মা আমার ছায়ার মতো ছিল। মা এখন নাই। আদরের বোনের পরিবারেও কেউ রইল না। বড্ড একা হয়ে গেলাম।’



সাতদিনের সেরা