kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দূষণ বন্ধের মাধ্যমে বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে নানা আয়োজন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ১৯:৩৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দূষণ বন্ধের মাধ্যমে বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে নানা আয়োজন

দূষণ বন্ধের মাধ্যমে বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচিয়ে তোলার লক্ষে ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশ কনসোর্টিয়াম এবং নদীপাড়ের সংগঠনসমূহকে নিয়ে গঠিত বুড়িগঙ্গা নদী মোর্চার যৌথ আয়োজনে দু’দিনের উৎসব শুরু হয়েছে।

আজ শুক্রবার প্রথম দিনে রাজধানীতে সাইকেল র‌্যালি, নদীতে ডিঙ্গি নৌকা প্রতিযোগিতা, মূকাভিনয় ও শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার সকালে মানিক মিয়া এভিনিউ থেকে বছিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এক সাইকেল র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। সাইকেল র‌্যালির উদ্বোধন করেন ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশের সমন্বয়ক ও বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার শরীফ জামিল।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ সাইকেল লেন ইমপ্লিমেন্টেশন কাউন্সিলের সভাপতি মো. আমিনুল ইসলাম টুব্বুসের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার, বিশিষ্ট অভিনেতা ও চলচ্চিত্র নির্দেশক নাদের চৌধুরী, কাউন্টারপার্ট ইন্টারন্যাশনালের প্রোমোটিং অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড রাইটস (পার) এর প্রোগ্রাম স্পেশালিস্ট মেহেদী হাসান, রিভার অ্যান্ড ডেল্টা রিসার্চ সেন্টার (আরডিআরসি)’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এজাজ, পশুর রিভারকিপার নূর আলম শেখ, সুরমা রিভারকিপার আবদুল করিম কিম, খোয়াই রিভারকিপার তোফাজ্জল সোহেল, সুন্দরবন ও উপকূল রা আন্দোলনের সমন্বয়ক নিখিল চন্দ্র ভদ্র, যুব বাপা কর্মসূচির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট রাওমান স্মিতা প্রমূখ।

র‌্যালির উদ্বোধনকালে শরীফ জামিল বলেন, নদীকে আমাদের সম্মুখভাগ করতে হবে। আমাদের নদীগুলোকে বাঁচাতে হবে। আমরা এই আয়োজন নিয়ে এসেছি মানুষকে সচেতন করতে। আজকে যুবসমাজ এগিয়ে এসেছে। বুড়িগঙ্গাকে বাঁচাতে সাইকেল র‌্যালি করছে। ঢাকাবাসীকেও এগিয়ে আসতে হবে। দূষণের হাত থেকে রা করতে হবে রাজধানীর প্রাণ এই বুড়িগঙ্গাকে।

অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার বলেন, যারা স্বাস্থ্য সচেতন তারা সাইকেল চালায়। আর যারা স্বাস্থ্য সচেতন তারাই পরিবেশ সচেতন। এই পরিবেশ সচেতন সাইকিস্টদের মতো সকলকে এগিয়ে আসতে হবে বুড়িগঙ্গা নদী রায়।

অভিনেতা নাদের চৌধুরী বলেন, আমি ঢাকার মানুষ। আমি আগের মতো আবার বুড়িগঙ্গার তীরে সাইকেল চালাতে চাই। আপনারা বুড়িগঙ্গাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন, শিল্পী সমাজ আপনাদের পাশে আছে।

পশুর রিভারকিপার নূর আলম শেখ বলেন, বুড়িগঙ্গাকে রার জন্য যে উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে তা সারাদেশের নদীসমূহকে রার জন্য মানুষকে এগিয়ে আসতে উদ্বুদ্ধ করবে। এ কাজে যুব সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

কাউন্টারপার্ট ইন্টারন্যাশনাল'র প্রোগ্রাম স্পেশালিস্ট মেহেদী হাসান বলেন, ইউএসএআইডি এবং এফসিডিও’র অর্থায়নে প্রোমোটিং অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড রাইটস (পার) প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা ওয়াটারকিপার্স কনসোর্টিয়ামের সাথে একসাথে কাজ করছি। আপনারা বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছেন। আমরা আপনাদের পাশে আছি।

আরডিআরসি’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এজাজ বলেন, বুড়িগঙ্গা নদী উৎসবকে ঘিরে বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে। আশা করি এই উদ্যোগের মধ্য দিয়ে বুড়িগঙ্গাকে দূষণমুক্ত রাখতে সকলে সচেতন হবেন।

সাইকেল র‌্যালি শেষে উৎসবস্থল বছিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নদী বিষয়ে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও মূকাভিনয় অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বছিলা ঘাটে এক ডিঙ্গি নৌকার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। আগামীকাল শনিবার একই স্থানে উৎসবস্থলে নানা আয়োজন রয়েছে। এই উৎসবের মধ্য দিয়ে নদী পাড়ের মানুষেরা তাদের প্রাণ বুড়িগঙ্গাকে দূষণমুক্ত করার কাজে অনুপ্রাণিত হবে বলে উৎসবের আয়োজকরা মনে করেন।



সাতদিনের সেরা