kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

নাঈম প্রসঙ্গে শেখ তাপস

'শিশু বয়সে মা-বাবাকে হারিয়ে প্রিয়জন হারানোর কষ্ট আমি বুঝি'

অনলাইন ডেস্ক   

২৫ নভেম্বর, ২০২১ ১৯:৩১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'শিশু বয়সে মা-বাবাকে হারিয়ে প্রিয়জন হারানোর কষ্ট আমি বুঝি'

নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসানের হত্যাকারীর বিচারের দাবিসহ ছাত্রদের অন্যান্য দাবির সাথে শুধু একমত পোষণই না, ঘাতক সেই খুনির ফাঁসিও দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ঢাদসিক) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

আজ বৃহস্পতিবার নগর ভবনের সামনে নিহত শিক্ষার্থী নাঈম হাসানের হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীদের সমাবেশে এসে তিনি এ কথা বলেন।

ঢাদসিক মেয়র তাপস বলেন, আমি জানি এই কষ্ট কি। একজন মেধাবী ছাত্র নাঈম আমার এই সিটি করপোরেশন এলাকার সড়কে আমার করপোরেশনের গাড়ি দ্বারা দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে নিহত হবে, সেজন্য আমি রাজনীতিতে আসি নাই। আমার কাছে আমার সন্তানের সুখ, সন্তানের হাসি, সন্তানের ভালোবাসা অনেক অনেক মূল্যবান। আপনারা যে দাবি দিয়েছেন, সেই দাবির সাথে আমি শুধু একমত পোষণই না, শুধু সম্মতিই না আমি আরও দাবি করি, যেন সেই খুনির ফাঁসি হয়। আমি দাবি করি, এই শহরের সড়কে আর যেন কোনো নাঈমের প্রাণহানি না ঘটে।

তিনি বলেন, আমি আপনাদেরকে ওয়াদা করছি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সকল জঞ্জাল মুক্ত করব ইনশাআল্লাহ। আমাদেরকে তারপরেও আইনের আওতায় থাকতে হয়। আমাদেরকে সরকারি নীতিমালা-নিয়মকানুন মানতে হয়। মেনে চলতে হয়। সেই নিয়মকানুন মেনেই গাড়ি চালকের গাড়ি চালানো দায়িত্ব ছিল। সে সেই দায়িত্ব পালন করেনি। আরেকজন ভাড়াটিয়া গাড়ি চালককে দিয়ে গাড়ি চালিয়েছে। সুতারং সবাইকেই শাস্তি ভোগ করতে হবে। যার দায়িত্ব ছিল তাকে আমরা সাময়িক বরখাস্ত করেছি এবং ইনশাআল্লাহ চাকরি থেকে অপসারণ করব। যেই চালক গাড়ি চালানো অবস্থায় ছিল সে খুনি। তার সর্বোচ্চ শাস্তি ইনশাআল্লাহ আমরা নিশ্চিত করব। আপনাদের সাথে কণ্ঠে কণ্ঠ লাগিয়ে আমি বলি সেই খুনির ফাঁসি চাই আমি।

এ সময় আন্দোলনরত ছাত্রদের দাবির পক্ষে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে অ্যাডভোকেসি করবেন জানিয়ে ঢাদসিক মেয়র বলেন, কোনো বহিরাগত যেন ডিএসসিসির কোনো গাড়ি চালাতে না পারে, সেই কঠোর ব্যবস্থা নেব। আপনাদের যে দাবি এসেছে আমি আপনাদের হয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায় পর্যন্ত আপনাদের পক্ষে অ্যাডভোকেসি করব। সরকারের কাছ থেকে সকল দাবি আদায়ের ব্যবস্থা করব। ঢাকা নিরাপদ শহর হবে আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার ছিল। নিরাপদ সড়ক করতে আপনাদের সাথে কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে কাজ করব।

নাঈমকে নিজের সন্তানতূল্য উল্লেখ করে ঢাদসিক মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, সম্প্রতি আমি আমার সন্তানের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে এসেছি। কিন্তু আসার দিনেই আমি নাঈমকে হারাব সেটা আমি কল্পনাও করতে পারিনি। নাঈম শুধু আপনাদের ভাই না, আপনাদের বন্ধু না একটি সতের বছরের আমার সন্তান।

সন্তান হারা পিতা-মাতাকে সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা জানা নেই জানিয়ে তাপস বলেন, আমিও মাত্র পৌনে চার বছরে আমার পিতা-মাতাকে হারিয়েছি। আমার মনেও কষ্ট ছিল। আমার মনেও আক্রোশ ছিল। বড় হয়ে পিতামাতার হত্যার বিচার নেব। নিজ হাতে খুনিদেরকে খুন করব। কিন্তু আমি করি নাই। আমি সব কষ্ট বুকে ধারণ করে আমার মায়ের শর্ত পূরণ করেছি। মানুষের মতো মানুষ হওয়ার চেষ্টা করেছি। শিক্ষা গ্রহণ করে পিতা-মাতা হত্যার বিচার ও বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের জন্য এজলাসে দাঁড়িয়েছি।

এ সময় ছাত্রদের দাবি মেনে নাঈমের নামে এ বছরের মধ্যে দক্ষিণ সিটির নিজস্ব অর্থায়নে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের ঘোষণা দেন।



সাতদিনের সেরা