kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

সিপিবির জাতীয় পরিষদ সভা সমাপ্ত

ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন হটিয়ে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় দ্বাদশ কংগ্রেস সফল করার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ নভেম্বর, ২০২১ ১৬:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিপিবির জাতীয় পরিষদ সভা সমাপ্ত

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র দ্বাদশ কংগ্রেসপূর্ব সর্বশেষ জাতীয় পরিষদ সভায় ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন হটিয়ে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় আগামী ১০ থেকে ১৩ ফেব্রুয়ারি পার্টির দ্বাদশ কংগ্রেস সফল করার আহ্বান জানানো হয়েছে। সভা থেকে জাতীয় পরিষদ সদস্যসহ পার্টির সকলকে দ্বাদশ কংগ্রেসের আহ্বান নিয়ে জনগণের কাছে যাওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়।

আজ রবিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। পার্টি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও করণীয় বিষয়ক রিপোর্ট উত্থাপন করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম। সভায় অংশ নেন আবু হোসেন, আব্দুল নবী, নুরুল হক ঢালী, নূর মোহম্মদ আনসার, মনিরুজ্জামান সানু, দিলীপ পাইক, শেখ বাহার মজুমদার, ফররুখ হাসান জুয়েল, শিবনাথ চক্রবর্তী, অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুস সামাদ মিয়া, মজিবুর রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল, মিজানুর রহমান সেলিম, পীযুষ চক্রবর্তী, রেখা চৌধুরী, মোজাহারুল হক, আব্দুল মালেক, আব্দুল কুদ্দুস, অরুণ কুমার শীল, শ ম কামাল হোসেন ও মো. মছিউদদৌলা।

সভায় জানানো হয়, কংগ্রেস অনুষ্ঠানের পূর্বে আগামী ১৫ থেকে ৩০ নভেম্বর সকল জেলায় সাধারণ সভায় খসড়া রাজনৈতিক প্রস্তাব উপস্থাপন করা হবে। ডিসেম্বর মাসে সকল শাখা ও থানা-উপজেলা সম্মেলন ও জানুয়ারি মাসে সকল জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ’৯০-এর গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বাংলাদেশে ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সুযোগ এসেছিল। কিন্তু ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও জামাত দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে ব্যর্থ হয়েছে। গত ১৩ বছর ধরে আওয়ামী লীগ সরকার জাতীয় ও স্থানীয় সকল পর্যায়ের নির্বাচনকে তামাশায় পরিণত করেছে। মধ্যরাতে ভোটের মাধ্যমে অবৈধভাবে ক্ষমতায় থাকা সরকার চলমান ইউপি নির্বাচনকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতার নির্বাচনের পাশাপাশি “নৌকা আওয়ামী লীগ বনাম বিদ্রোহী আওয়ামী লীগের” নির্বাচনে পরিণত করেছে। এ পর্যন্ত ইউপি নির্বাচনে ২৭ জন নিহত হয়েছে। তাই মানুষের গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার হরণকারী বর্তমান সরকারের ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন হটিয়ে জনগণের গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামকে বেগবান করতে হবে। গণতন্ত্রহীনতা, লুটপাটতন্ত্র, সাম্প্রদায়িকতা ও সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে জনগণের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান তিনি।



সাতদিনের সেরা