kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩০ নভেম্বর ২০২১। ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

পূজার দিনে মা কালীর মুখোশ পরে প্রতিবাদ মিছিল

সহিংসতায় জড়িতদের মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ নভেম্বর, ২০২১ ১৮:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সহিংসতায় জড়িতদের মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি

সারাদেশে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস ও লুটপাটের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচার এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মুখে মা কালীর মুখোশ পড়ে রাজধানীতে প্রতিবাদ মিছিল করেছে বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদ। আজ বৃহস্পতিবার মিছিলের পূর্ব সমাবেশে পরিষদের নেতৃবৃন্দ সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জড়িতদের মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

রাজধানীর শাহবাগ চত্ত্বরে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদের সভাপতি ড. ময়না তালুকদার। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পুলক ঘটকের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তৃতা করেন মহিলা ঐক্য পরিষদের সভাপতি সুপ্রীয়া ভট্টাচার্য্য, পরিষদের সহ-সভাপতি রীনা রায়, কোষাধ্যক্ষ পুলক রাহা, দপ্তর সম্পাদক মিতা রানী রায় চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা পিন্টু সাহা, মিনু বড়ুয়া প্রমুখ।

সমাবেশে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধে দেশের হিন্দু জনগোষ্ঠী ও অসাম্প্রদায়িক আদর্শের মানুষদের একসঙ্গে প্রতিবাদ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করলেও বাস্তবে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা দৃশ্যমান নয়। যে কারণে একের পর সহিংসতার ঘটনা ঘটছে। হামলা-লুটপাট ও খুনের মতো ঘটনা ঘটছে। মৌলবাদী শক্তির সঙ্গে রাজনৈতিক আপসকামিতা শুধু হিন্দুদের নয়, দেশ এবং দেশবাসীকে বিপন্ন করছে, যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের বিরোধী বলেও তারা উল্লেখ করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, কুমিল্লার ঘটনাকে অজুহাত করে এবার দেশের ২৩টি জেলায় হামলা ভাংচুর ও হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। অতীতের রামু, সাথিয়া, গোবিন্দগঞ্জ, নাসিরনগর, সুনামগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার জন্য দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধ করা সম্ভব হতো। কুমিল্লার ঘটনায় আটক ইকবালকে দিয়ে যেন জজ মিয়া নাটক সাজানো না হয়, সেবিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। নেতৃবৃন্দ সাম্প্রদায়িক উগ্র মৌলবাদী সন্ত্রাস প্রতিরোধে নারীর ক্ষমতায়ন, নারীশক্তির জাগরণ এবং নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন জোরদার করার আহ্বান জানান।



সাতদিনের সেরা