kalerkantho

শুক্রবার । ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩ ডিসেম্বর ২০২১। ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

মানুষের ভাত বেশি খাওয়া নিয়ে কোনো কথা বলিনি : কৃষিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানুষের ভাত বেশি খাওয়া নিয়ে কোনো কথা বলিনি : কৃষিমন্ত্রী

ফাইল ফটো

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, মানুষের ভাত বেশি খাওয়ার কারণে চালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে- এ ধরনের কোনো মন্তব্য তিনি করেননি।

আজ শুক্রবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। ‘বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন ২০২১ : বাংলাদেশে প্রত্যাশা’ শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটি।

কৃষিমন্ত্রী অনুষ্ঠানে বলেন, মানুষের পুষ্টির চাহিদা মেটানোর কথা বলেছি। ভাত বেশি খাওয়া কিংবা চালের দাম নিয়ে কোনো কথা আমি বলিনি। আমি এ প্রসঙ্গই আনিনি।

সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয় যে কৃষিমন্ত্রী দেশের মানুষকে ভাত কম খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ ধরনের তথ্য ছড়িয়ে পড়ে। এ বিষয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ধানের জাত এবং চাষাবাদ কী হওয়া উচিত- এটা নিয়ে কথা হয়। এ বিষয়ে আমাদের বিজ্ঞানীরা কাজ করছেন। মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা সংক্রান্ত একটি বিষয় ছিল সেদিনের আলোচনায়। আমরা চালজাতীয় খাবারে অনেকটা আত্মনির্ভরশীল। যদি ভালো আবহাওয়া থাকে আমাদের কোনো সমস্যা হয় না। আমরা খাদ্যে উদ্বৃত্ত থাকি।

তিনি বলেন, কিন্তু এখন আমাদের লক্ষ্য হলো পুষ্টিজাতীয় খাবার। এটি আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছি, আমরা পুষ্টিজাতীয় খাবার এবং সি-ফুড মানুষকে দেব। এটাই এখন আমাদের চ্যালেঞ্জ। এটা করার জন্য কৃষিকে আধুনিকীকরণ করতে হবে। আমরা যান্ত্রিকীকরণ করছি। আমরা কৃষিপণ্যকে যান্ত্রিকীকরণ করব প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে। আমাদের কৃষকদের আয় বাড়াতে হবে, তাদের জীবনযাত্রার মান বাড়াতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, মানুষের পুষ্টির চাহিদা মেটানোর কথা বলেছি। এ কথা আমি আরো একদিন বলেছি, আমাদের এক মিডিয়ার সাংবাদিকদের ফোরামে। ৭৭টি মিডিয়া আমার বক্তব্য কাভার করেছে। একটি ভুঁইফোড় পত্রিকা তারা নিউজ করেছে আমি নাকি বলেছি, মানুষ ভাত বেশি খায় এ জন্য চালের দাম বেড়ে গেছে। এ ধরনের কথা আমি কোনো দিনই বলিনি।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকারের লক্ষ্য হলো আগামী প্রজন্মকে সৃজনশীল ও মেধাবী করতে তাদেরকে পুষ্টিজাতীয় খাবার দিতে হবে। জাপান চার বেলা ভাত খায়, কিন্তু সেটা অনেক কম। সেখানে আমরা আগে ৪৩০ গ্রাম খেতাম, এখন এটা কমে ৩৭০ গ্রামে আসছে। আস্তে আস্তে কমছে। মানুষের যেহেতু আয় বাড়ছে, মানুষ এখন শাকসবজি, ফলমূল, ডিম, মাছ, মাংস বেশি খাচ্ছে।



সাতদিনের সেরা