kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

সিপিবি’র বিক্ষোভ-সমাবেশ

সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ অক্টোবর, ২০২১ ১৯:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) বিক্ষোভ-সমাবেশের মধ্য দিয়ে ‘সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধ দিবস’ পালন করেছে। বুধবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ-সমাবেশে সিপিবি  নেতৃবৃন্দ সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম। সমাবেশে বক্তৃতা করেন সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, সহকারী সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল্লাহ কাফি রতন ও মিহির ঘোষ, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নানা গুজব ছড়িয়ে দিয়ে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করা হয়েছে। নৈরাজ্য সৃষ্টির মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে পরিকল্পিতভাবে এই সাম্প্রদায়িক হামলা চালানো হয়। সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে দমন করার বদলে সরকার প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। বিচারহীনতার কারণে একের পর এক সাম্প্রদায়িক হামলা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তারা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সবচেয়ে ভয়াবহ বিষয় হলো, শাসকদের রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা ও লালন-পালনের মধ্য দিয়ে সাম্প্রদায়িতার বিপদ কেবল ধর্মান্ধ প্রতিক্রিয়াশীল সন্ত্রাসী ক্যাডারবাহিনী রূপেই বিরাজ করছে না। সাম্প্রদায়িকতা দিন দিন দেশের ‘সামাজিক মনস্তত্ত্বে’ আসন গেড়ে বসেছে। এর দায়-দায়িত্ব শাসকদেরই নিতে হবে। বর্তমান সরকার হেফাজতকে খুশী করতে গিয়ে পাঠ্যপূস্তকে ও সিলেবাসকে সাম্প্রদায়িক ধারায় পরিবর্তন করেছে। শাসকদের রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতায় আজ সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে, মানুষের মনস্তত্ত্বে সাম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে পড়েছে। রাষ্ট্রযন্ত্র ও প্রশাসনের লোকেরাও এ থেকে মুক্ত নয়।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক ও সমাজতন্ত্র অভিমুখীন শোষনমুক্ত সমাজ নির্মানের জন্য ৩০ লাখ মানুষ প্রাণ উৎসর্গ করেছে। আজ শুখু বাংলাদেশ থেকেই নয়, গোটা উপমহাদেশ থেকে সাম্প্রদায়িকতাকে নিশ্চিহ্ন করা এ অঞ্চলের মানুষের প্রধান রাজনৈতিক কর্তব্য। সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে জণগনকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। যে কোনো ধরনের সাম্প্রদায়িক উস্কানি সর্ম্পকে সতর্ক থাকা ও অপশক্তিকে রুখে দাঁড়ানোর জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ।



সাতদিনের সেরা