kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

সরকার খাল কেটে কুমির আনছে : রিজভী

অনলাইন ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০২১ ১৯:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সরকার খাল কেটে কুমির আনছে : রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার খাল কেটে কুমির আনার চেষ্টা করছে। কিন্তু একসময় সে কুমির যে সবকিছু গ্রাস করবে আপনারা এটা টের পাচ্ছেন না। আপনারা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগিয়ে, নানাভাবে উসকানি দিয়ে দেশের দীর্ঘদিনের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য সেটা বিনষ্ট করছে।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের আয়োজনে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল বা গতপরশু বলেছেন আমাদের উন্নয়ন তাদের সহ্য হয় না। আপনার উন্নয়ন সহ্য হয় না? না আমাদের গণতন্ত্রের কথা বলা এটা আপনাদের সহ্য হয় না? এই গণতন্ত্র মুক্ত করার জন্য আমরা লড়াই করছি। আপনাদের যে সহ্য হয় না এটা তার প্রমাণ ২০১৮ সালে দিনের বেলা ভোট করতে সাহস পাননি। আপনারা নিশিরাতে মিডনাইট নির্বাচন করেছেন।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, আপনাদের জেলা উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সবাই শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে ব্যস্ত তাহলে কুমিল্লার ঘটনা ঘটলো কেন? সেখানকার জনগণ প্রশাসনকে জানিয়েছে তাড়াতাড়ি নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেন কিন্তু প্রশাসন সেটাও করেননি। পুলিশ সঠিক সময়ে আসেননি। সঠিক সময় পুলিশ আসেনি বলে রক্তাক্ত এর ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লায় ফেনীতে, চাঁদপুরে, রংপুরে। কারণ আপনারা সে নিরাপত্তা দিতে রাজি নন।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতিটি ঘটনায়, রোগে শোকে ক্লান্তিতে, এই দুর্বিসহ দুঃশাসনের মধ্যেও যিনি প্রচণ্ডভাবে চারদিকে গুম খুন স্তব্ধতায় যিনি অভয় মন্ত্র শোনান, আমাদের সেই প্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে শেষ করার জন্য শেখ হাসিনা সকল আয়োজন সম্পন্ন করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু আমাদের জাতীয়তাবাদী শক্তি যাদের অন্তরে সামান্য পরিমাণ স্পন্দন আছে আমরা কি হাসিনার সেই নীলনকশা বাস্তবায়ন করতে দেবো? দিবোনা। শেখ হাসিনার এই ময়ূর সিংহাসন স্থির রাখা যাবে না। এই ময়ূর সিংহাসন আমাদের উল্টাতে হবে।

এ সময় যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোর্তাজুল করিম বাদরু, মহানগর উত্তরের সভাপতি শফিকুল ইসলাম মিল্টন প্রমুখ বক্তব্য দেন।



সাতদিনের সেরা