kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

দুর্গা পূজায় তিন দিন ছুটি দাবি হিন্দু ফোরামের

অনলাইন ডেস্ক   

১ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুর্গা পূজায় তিন দিন ছুটি দাবি হিন্দু ফোরামের

দুর্গা পূজায় তিন দিন ছুটি দাবি ও দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজা মণ্ডপে প্রতিমা ভাঙচুরের প্রতিবাদ ও পূজামন্ডপে নিরাপত্তা জোরদারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম। এ ছাড়া প্রতিমা ভাঙচুরে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান, ভোলা জেলার পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি গৌরাঙ্গ দের মুক্তির দাবি জানান তারা।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম, হিন্দু যুব ফোরাম ও হিন্দু ছাত্র ফোরাম যৌথভাবে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এসব দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, চাঁদপুরের কচুয়ায়, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে, নোয়াখালী সদর উপজেলায়, বগুড়া জেলার শেরপুরে, কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়াসহ সারা দেশে একের পর এক প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটে চলছে। বিশেষ করে দুর্গোৎসব আসার আগে এ ধরনের ঘটনা সবচাইতে বেশি ঘটে, যা অত্যান্ত উদ্বেগজনক। বিশেষ করে পূজামন্ডপে প্রতিমা নির্মাণের সময় দুর্গোৎসবকে বিঘ্নিত করার জন্য একটি চক্র এ ধরনের ঘটনা ঘটায়। এ ধরনের ঘটনা আজ নতুন নয়, বিভিন্ন সরকারের আমলে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে।

তারা আরো বলেন, বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের দীর্ঘদিনের যৌক্তিক দাবি 'শারদীয় দুর্গা পূজায় সরকারিভাবে ৩ দিনের ছুটি ঘোষণা'। কিছুদিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপুজা। শুধু বাংলাদেশ নয়, পৃথিবীর তাবৎ বাংলাভাষাভাষি হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের কাছে শারদীয়া দুর্গা পূজা সবচেয়ে ধর্মীয় উৎসব। বাংলাদেশের গ্রামগঞ্জে সর্বত্র পারিবারিক কিংবা সার্বজনীন দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। দুর্গা পূজায় ষষ্ঠী থেকে দশমী এই পাঁচ দিনের পূজা অনুষ্ঠানের জন্য বাংলাদেশের হিন্দুরা সরকারি ছুটি পাচ্ছেন ১ দিন। দুর্গাপূজায় মাত্র এই ১ দিনের সরকারি ছুটির কারণে বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায় দীর্ঘদিন যাবত দুর্গা পূজার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মানিক চন্দ্র সরকার, সহ-সভাপতি কালীপদ মজুমদার, বাংলাদেশ হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতির সভাপতি অধ্যাপক হীরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, হিন্দু হেরিটেজ ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আশালতা বৈদ্য প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা