kalerkantho

বুধবার । ৪ কার্তিক ১৪২৮। ২০ অক্টোবর ২০২১। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সুন্দরবন থেকে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় কাঁকড়া পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা অবৈধ: হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুন্দরবন থেকে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় কাঁকড়া পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা অবৈধ: হাইকোর্ট

সুন্দরবনের দুবলার চর এবং ওই এলাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত সরকার ঘোষিত রুটে ইঞ্জিন চালিত নৌকায় কাঁকড়া পরিবহনে বন অধিদপ্তরের তথা সরকারের নিষেধাজ্ঞা অবৈধ বলে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, এই রায় অপব্যবহার করে কেউ যাতে ইঞ্জিন চালিত নৌকা নিয়ে সংরক্ষিত বনাঞ্চলে ঢুকতে না পারে সেজন্য নির্দেশনা থাকবে।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহষ্পতিবার পর্যবেক্ষণসহ এ রায় দিয়েছেন। জাহান আলী গাজীসহ ৮ জনের করা এক রিট আবদেনে জারি করা রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে এ রায় দেন আদালত। ফলে সরকারের নির্ধারিত রুটে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের বাইরে থেকে কাঁকড়া সংগ্রহ করে তা ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে খুলনায় আনা যাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিস্ট আইনজীবী। আদালতে রিট আবেদনকারীপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট চঞ্চল কুমার বিশ্বাস ও অ্যাডভোকেট আল ফয়সাল সিদ্দিকী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

আইনজীবী জানান, নিবন্ধিত ট্রলারে পশুর নদী ব্যবহার করে দুবলার চর থেকে সব ধরণের মাছ পরিবহনের অনুমতি আছে বনবিভাগের। তবে কাঁকড়া বহনের অনুমতি দেওয়া হচ্ছিল না। ফলে কাঁকড়া ধরার পর খুলনা আনতে দেরি হওয়ায় অনেক কাঁকড়া মারা যেত। এ অবস্থায় অন্যান্যদের মতো ইঞ্জিন চালিত নৌকায় কাঁকড়া পরিবহণের অনুমতি চেয়ে ২০১৮ সালের ১২ আগস্ট প্রধান বন সংরক্ষকসহ সংশ্লিস্টদের কাছে আবেদন করেন দাকোপ ও বটিয়াঘাটাসহ সংশ্লিস্ট এলাকায় কাঁকড়া আহরণকারী জেলেরা। কিন্তু বন বিভাগ ওই আবেদনে সাড়া না দেওয়ায় জেলেরা ওইবছরই হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। হাইকোর্ট ৩০ দিনের মধ্যে ওই আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন। এরপর বন বিভাগ থেকে ওইবছরের ৫ ডিসেম্বর আবেদনকারীদের জানায় যে, কাঁকড়া পরিবহণের অনুমতি দেওয়া হবে না। এরপর বন বিভাগের ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে সংশ্লিস্টরা ২০১৯ সালে রিট আবেদন করেন। হাইকোর্ট রুল জারি করেন। এই রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে রায় দিলেন হাইকোর্ট।



সাতদিনের সেরা