kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

হৃদরোগে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতার মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১২:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হৃদরোগে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতার মৃত্যু

দারুস সালাম থানা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হামিদ হাসান (৫০) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর মিরপুরে নিজ বাসায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। শনিবার জাতীয় পার্টি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

হামিদ হাসানের মৃত্যুতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন এবং মরহুমের বিদেহী রুহের মাগফিরাত কামনা করেছেন।

তিনি বলেন, হামিদ হাসান একজন ভালো মানুষ ছিলেন। অন্তত সৎ সাহসী ও দক্ষ সংগঠক ছিলেন। তিনি  আদর্শবান বিনয়ী সদালাপী পরিশ্রমী সাংগঠিক নেতা ছিলেন। হামিদ হাসান এরশাদ মুক্তি আন্দোলনের লড়াকু সৈনিক ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে দারুস সালাম থানা জাতীয় পার্টির সভাপতি হিসেবে বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অবদান রেখেছেন। তার মৃত্যুতে জাতীয় পার্টির অপূরণীয় ক্ষতি হলো, যা সহসা পূরণ হওয়ার নয়। তিনি মৃত্যুর পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন। তার অবদানের কথা জাতীয় পার্টি চিরদিন কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ রাখবে।

হামিদ হাসান দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে দেশে-বিদেশে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

হামিদ হাসানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু। তিনি মরহুমের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

এক শোকবার্তায় হামিদ হাসানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম ফয়সল চিশতী এবং সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম সেন্টু। তারা মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।



সাতদিনের সেরা