kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

‘সাধারণ আনসার মৌলিক প্রশিক্ষণ (পুরুষ) ৩য় ধাপ’-এর সমাপনী কুচকাওয়াজ

মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করলেন ১২৪০ আনসার সদস্য

অনলাইন ডেস্ক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৯:৫৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করলেন ১২৪০ আনসার সদস্য

বাংলাদেশ আনসার ভিডিপি একাডেমি, সফিপুর, গাজীপুরে আজ রবিবার সকালে ‘সাধারণ আনসার মৌলিক প্রশিক্ষণ (পুরুষ) ৩য় ধাপ’-এর প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানের সালাম গ্রহণ করেন। এছাড়াও বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম, বিপি, ওএসপি, এনডিসি, পিএসসি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাহিনীর অতিরিক্ত মহাপরিচালক, কমান্ড্যান্ট, উপ-মহাপরিচালক (প্রশাসন), উপ-মহাপরিচালক (অপারেশনস) ও উপ-মহাপরিচালক (প্রশিক্ষণ) -সহ সদর দপ্তর ও একাডেমির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, ১২৪০ জন সাধারণ আনসার ১০ (দশ) সপ্তাহ মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে সমাপনী কুচাকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে। কুচাকাওয়াজের শুরুতেই মাননীয় প্রধান অতিথি একটি সুসজ্জিত খোলা জীপে প্যারেড পরিদর্শন করেন। এ সময় বাহিনীর মহাপরিচালক ও প্যারেড কমান্ডার প্রধান অতিথির সাথে উপস্থিত ছিলেন। পরে প্রশিক্ষণার্থীগণ ৬ সারিতে মার্চ পাস্ট করে প্রধান অতিথিকে অভিবাদন জানান। এরপর প্রধান অতিথি মাননীয় সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন কৃতী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করেন। আব্দুল কাদির ইমন (শ্রেষ্ঠ ড্রিল), মোঃ নোমান (শ্রেষ্ঠ ফায়ারার) এবং নেউইন উম্মেষ (চৌকস) প্রশিক্ষণার্থী সাধারণ আনসার হিসেবে প্রধান অতিথির নিটক থেকে এ পুরস্কার গ্রহন করেন।

পরে প্রধান অতিথি প্রশিক্ষণার্থী সাধারণ আনসার সদস্যদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের সর্ববৃহৎ শৃঙ্খলা বাহিনী। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে অদ্যাবধি প্রতিটি ক্ষেত্রে এ বাহিনীর সদস্যরা সবসময়ই কর্মদক্ষতা ও সফলতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও, বৈশ্বিক মহামারী করোনা মোকাবিলায় বাহিনীর অন্যান্য সদস্য-সদস্যাদের ন্যয় সাধারণ আনসার সদস্যদের আত্মত্যাগ, দায়িত্ব কর্তব্য ও নিষ্ঠা সকলের প্রশংসা অর্জন করেছে। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান যেমন-বিমান ও স্থলবন্দর, সমুদ্রবন্দর, পদ্মা বহুমুখী সেতু, ইপিজেডসহ গুরুত্বপূর্ণ ৪,৭৫০টি প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় প্রায় ৫০ হাজারের অধিক অঙ্গীভূত আনসার সদস্য নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব পালন করছে। এছাড়া জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ সকল নির্বাচন, বিভিন্ন উৎসব ঈদ, পূজা-পার্বণ, বিশ্বইজতেমা, শপিংমল, বাণিজ্যমেলা ও বইমেলা, ট্রাফিক কন্ট্রোলসহ প্রভৃতি ক্ষেত্রে সাধারণ আনসার সদস্য-সদস্যারা জননিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করে। সম্প্রতি করোনা মোকাবেলায় যশোর ও চুয়াডাঙ্গায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের নিরাপত্তাসহ দেশব্যাপী লক ডাউন কার্যক্রমে অন্যান্য বাহিনীর পাশাপাশি এ বাহিনীর সদস্যরা দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে। প্রধান অতিথি প্রশিক্ষণার্থী সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজ এ বাহিনীর ১২৪০ জন সদস্য কঠোর পরিশ্রম ও অনুশীলনের মাধ্যমে ১০ সপ্তাহ মেয়াদী প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষ করেছেন। এ জন্য তিনি তাদেরকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান। এছাড়াও, প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী সদস্যরা প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞান, মেধা, শ্রম ও দক্ষতা কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পরে সংঘবদ্ধ মার্চ পাস্ট এর মাধ্যমে কুচকাওয়াজের সমাপ্তি ঘটে। উল্লেখ্য, উক্ত মৌলিক প্রশিক্ষণে মোঃ জাহিদ হোসেন উপ-পরিচালক, কোর্স ওআইসি এবং স্বরূপ বিশ্বাস, সহকারী অ্যাডজুট্যান্ট, কোর্স অ্যাডজুট্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।



সাতদিনের সেরা