kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১।৮ সফর ১৪৪৩

কাবুল থেকে দোহায় ১২ বাংলাদেশি, শিগগিরই দেশে ফিরবেন

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২৯ আগস্ট, ২০২১ ০৮:১৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কাবুল থেকে দোহায় ১২ বাংলাদেশি, শিগগিরই দেশে ফিরবেন

কাবুল বিমানবন্দরের সাম্প্রতিক ছবি।

কাবুল থেকে দেশে ফেরার অপেক্ষায় থাকা ১২ বাংলাদেশি অবশেষে গতকাল শনিবার নিরাপদে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে পৌঁছেছেন। তাঁদের সঙ্গে চট্টগ্রামে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের ১৬০ আফগান নারী শিক্ষার্থীও আছেন। তাঁরা শিগগিরই ভাড়া করা ফ্লাইটে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হবেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল রাতে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। জানা গেছে, ওই বাংলাদেশিরা বর্তমানে কাতারের দোহায় মার্কিন ঘাঁটিতে আছেন। দুই ভাগে তাঁরা দোহায় পৌঁছেন। ছয় বাংলাদেশি গতকাল শনিবার দুপুরের দিকে কাবুল থেকে দোহায় পৌঁছেন।

এর আগে গত শুক্রবার মধ্যরাতের পর আফগানিস্তান থেকে ছয় বাংলাদেশি প্রকৌশলী কাবুল থেকে নিরাপদে কাতারের রাজধানী দোহায় পৌঁছেছেন। তাঁরা সবাই আফগানিস্তানের বৃহত্তম মোবাইল ও ইন্টারনেট সেবা প্রতিষ্ঠান আফগান ওয়্যারলেসে কাজ করতেন। তাঁদের অন্যতম রাজীব বিন ইসলাম গতকাল সন্ধ্যায় দোহা থেকে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা আফগান ওয়্যারলেসের ছয় প্রকৌশলী শুক্রবার কাবুল বিমানবন্দরে প্রবেশের সুযোগ পাই। সেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস ও যুক্তরাষ্ট্র সামরিক বাহিনীর মাধ্যমে মার্কিন সামরিক ফ্লাইটে আমেরিকার অন্য নাগরিকদের সঙ্গে আমরাও কাতারের দোহায় পৌঁছেছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস ম্যাডামের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তিনি এরই মধ্যে আমাদের সহায়তায় প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে দোহায় বাংলাদেশ দূতাবাসকে নির্দেশনা দিয়েছেন। পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতার জন্য আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আমরা দোহায় যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে আমেরিকার নাগরিকদের সঙ্গে নিরাপদে আছি।’

এদিকে ব্র্যাক জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে তাদের তিন বাংলাদেশি কর্মী গতকাল দেশে ফিরেছেন। তাঁরা গত ২২ আগস্ট কাবুল ত্যাগ করেন এবং সেখান থেকে কাজাখস্তানে গিয়ে অবস্থান করছিলেন। সেখান থেকে গতকাল ভোর ৫টায় টার্কিশ এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে তাঁরা বাংলাদেশের বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। কাবুলে থাকা বাকি তিন কর্মীও নিরাপদে রয়েছেন। তাঁদের দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

আফগানিস্তান থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে আন্তর্জাতিক সেনা প্রত্যাহার শুরুর পর থেকে দেশটিতে ক্রমবর্ধমান সহিংসতার পরিপ্রেক্ষিতে ব্র্যাক তার কর্মীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যবস্থা নেয়। ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক শামেরান আবেদ বলেন, আফগানিস্তানে কর্মরত কর্মীদের ঝুঁকি নিরসন করে তাঁদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনাল। আফগানিস্তানের ১০টি প্রদেশে প্রায় তিন হাজার ব্র্যাককর্মী নিয়োজিত। তাঁদের মধ্যে ১২ বাংলাদেশি ছিলেন। তাঁদের ছয়জন দেশটি থেকে আগেই ফিরে আসেন।

আগেই ফিরতে বলেছিল সরকার : কয়েক সপ্তাহ আগেই আফগানিস্তান থেকে ফেরার জন্য বাংলাদেশিদের অনানুষ্ঠানিকভাবে অনুরোধ জানিয়েছিল সরকার। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল দুপুরে ঢাকায় এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওই তথ্য জানান।



সাতদিনের সেরা