kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

হলি আর্টিজানের ঘটনায় বলিউডে সিনেমা ‘ফারাজ’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ আগস্ট, ২০২১ ০৬:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হলি আর্টিজানের ঘটনায় বলিউডে সিনেমা ‘ফারাজ’

গুলশানের হলি আর্টিজানের সেই ভয়াবহ জঙ্গি হামলার ঘটনা অবলম্বনে বলিউডে বানানো হচ্ছে একটি সিনেমা, যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ফারাজ’। সিনেমাটির পরিচালক হনসল মেহতা; আর প্রযোজনায় রয়েছেন পরিচালক অনুভব সিনহা ও ভূষণ কুমার। বলিউডে খ্যাতিমান অভিনেত্রী কারিনা কাপুরের চাচাতো ভাই জাহান কাপুরের অভিষেক হচ্ছে এই সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। গতকাল বুধবার ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টের মাধ্যমে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

হনসল মেহতা একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক, লেখক, অভিনেতা ও প্রযোজক। তাঁর পরিচালিত ওয়েবসিরিজ ‘স্ক্যাম ১৯৯২ : দ্য হর্ষদ মেহতা স্টোরি’ গত বছর ওটিটিতে মুক্তি পায়, যা দর্শক-সমালোচকসব মহলেই উচ্চ প্রশংসা পেয়েছে। তিনি ‘শাহিদ’ (২০১৩) চলচ্চিত্র পরিচালনার জন্য সর্বাধিক পরিচিত, এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন। এ ছাড়া ‘সিটি লাইটস’ (২০১৪), ‘আলীগড়’ (২০১৬), ‘ওমের্তা’ (২০১৮), ‘ছলাং’ (২০২০) ইত্যাদি পরিচালনা করেছেন।

নির্মাণাধীন চলচ্চিত্র ‘ফারাজ’ সম্পর্কে হনসল মেহতা এক বিবৃতিতে বলেছেন, “‘ফারাজ’ সিনেমাটির কাহিনিতে ভয়ানক সহিংস এক পরিস্থিতির মধ্যেও বড় এক মানবিকতার গল্প রয়েছে। সিনেমাটি একটি বাস্তব ঘটনা অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে। এই গল্প তিন বছর ধরে আমি হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করেছি।”

তিনি আরো বলেন, ‘আমি খুবই আনন্দিত যে অনুভব সিনহা ও ভূষণ কুমার এই থ্রিলার সিনেমা তৈরিতে আমার সঙ্গে রয়েছেন। আমি এই সিনেমা তৈরি করে বিশ্ববাসীকে দেখানোর জন্য উদগ্রীব হয়ে আছি।’

এ বিষয়ে অনুভব সিনহা বলেন, “সিনেমাটির গল্পে শুধু সন্ত্রাসী হামলা ও ধ্বংসাত্মক বিষয়ই থাকছে না, এর সঙ্গে আশা ও আস্থার বিষয়ও থাকছে। ‘ফারাজ’ একটি মানবিক গল্পের সিনেমা।

এই কাহিনি সবার হৃদয় ছুঁয়ে যাবে। কাহিনিতে রয়েছে এক রাতের ১২ ঘণ্টার গল্প। সেই রাতে কী ঘটেছিল, তা গভীরভাবে দেখতে পাবে দর্শকরা।’    

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলা চালায় পাঁচ জঙ্গি। সেই হামলায় ২২ জন নিহত হয়। এর মধ্যে ৯ জন ইতালীয়, সাতজন জাপানিজ, একজন ভারতীয় এবং সাতজন বাংলাদেশি রয়েছে। বাংলাদেশিদের মধ্যে দুজন পুলিশ সদস্য। সেদিনের নিহতদের মধ্যে এক বাংলাদেশি তরুণের নাম ছিল ফারাজ, যাঁকে জঙ্গিরা ছেড়ে দিতে চেয়েছিল, কিন্তু তিনি তাঁর দুই বান্ধবীকে ছাড়া রেস্তোরাঁ ছেড়ে আসতে চাননি।



সাতদিনের সেরা