kalerkantho

শনিবার । ৩ আশ্বিন ১৪২৮। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১০ সফর ১৪৪৩

প্রতিদিন ৬ লাখ মানুষকে টিকা দিতে হবে : আইএমএফ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:৫৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রতিদিন ৬ লাখ মানুষকে টিকা দিতে হবে : আইএমএফ

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের ৪০ শতাংশ মানুষ টিকার আওতায় আনতে প্রতিদিন ৬ লাখের মতো মানুষকে টিকা দিতে হবে।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক আপডেটে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ৪০ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনতে প্রতিদিন শূন্য দশমিক ৩৬ শতাংশ মানুষকে টিকা দিতে হবে। 

আইএমএফের এ হিসাব ধরলে প্রতিদিন ছয় লাখের মতো মানুষকে টিকা দিতে হবে।

অন‍্যদিকে ২০২১ সালে বিশ্বের মোট অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৬ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আইএমএফ।

সংস্থাটি বলছে, করোনা সংকটের প্রেক্ষাপটে বৈশ্বিকভাবে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার হচ্ছে। কিন্তু উন্নত দেশ, উদীয়মান অর্থনীতির দেশ এবং নিম্ন আয়ের উন্নয়নশীল দেশগুলোর অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের গতিতে ব্যবধান বাড়ছে। এর কারণ, উন্নত দেশগুলোয় তুলনামূলক বেশি জনগোষ্ঠীকে ইতিমধ্যে টিকা দেওয়া হয়ে গেছে। এ ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে উদীয়মান ও নিম্ন আয়ের উন্নয়নশীল দেশগুলো। এ কারণে ওই সব দেশের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের গতি কম।

আইএমএফের প্রতিবেদন অনুযায়ী, উন্নত দেশগুলো তাদের ৪০ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকার দুটি করে ডোজ দিয়ে ফেলেছে। উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলো ১১ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকা দিয়েছে। আর নিম্ন আয়ের উন্নয়নশীল দেশগুলোয় এই হার মাত্র ১ শতাংশ। উন্নত দেশগুলো দ্রুত টিকা দেওয়ায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে সহায়তা করছে।

অন্যদিকে, টিকা দেওয়ার হার কম থাকায় ভারতসহ কিছু দেশ করোনার নতুন ঢেউয়ে বিপাকে পড়েছে। এ কারণে এখন করোনা মহামারি দুটি ধারায় চলছে।

আইএমএফ আরো জানিয়েছে, ২০২২ সালে বৈশ্বিক গড় প্রবৃদ্ধি ৪ দশমিক ৯ শতাংশ হতে পারে। গত এপ্রিল মাসে প্রকাশিত আউটলুকে যে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল, তা অপরিবর্তিত রেখেছে আইএমএফ।

সংস্থাটি বলেছে, যতক্ষণ করোনা মহামারিকে আমরা বিদায় করতে না পারব, ততক্ষণ অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার নিশ্চিত নয়।

উন্নত ও উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলোর প্রবৃদ্ধি সম্পর্কে আইএমএফের পূর্বাভাস বলছে, ২০২১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ৭ শতাংশ মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হতে পারে। যুক্তরাজ্যেও একই হারে প্রবৃদ্ধি হবে। আর ইউরো অঞ্চলে প্রবৃদ্ধি হার ৪ দশমিক ৬ শতাংশ।

এছাড়া জাপানে ২ দশমিক ৮ শতাংশ, চীনে ৮ দশমিক ১ শতাংশ, ভারতে ৯ দশমিক ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হতে পারে। একমাত্র চীন ছাড়া বাকি প্রায় সব বড় অর্থনীতির দেশ চলতি বছরে নেতিবাচক (সংকুচিত) প্রবৃদ্ধি থেকে বেরিয়ে আসবে।

আইএমএফের নতুন এ প্রতিবেদনে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি। তবে দেশভিত্তিক আলাদা তথ্যকণিকায় পূর্বাভাস হিসেবে বলা হয়েছে, ২০২১ সালে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৫ শতাংশ হতে পারে।



সাতদিনের সেরা