kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৮। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২০ সফর ১৪৪৩

সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনে যুবলীগের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ জুলাই, ২০২১ ১৭:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনে যুবলীগের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র, ডিজিটাল বাংলাদেশে নির্মাণের নেপথ্য নায়ক এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে বিপ্লব ঘটানোর স্থপতি সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন উপলক্ষে অসহায়, দুস্থ, দিনমজুর, খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগ।

আজ মঙ্গলবার পুরান ঢাকার সোহরাওয়ার্দী কলেজ প্রাঙ্গণে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নেতৃত্বে দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবুর নিজস্ব অর্থায়নে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, তেল, সবজি, লবণ, বিস্কুট।

এ সময় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার আধুনিক রূপই হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, নেতৃত্বদানকারী তারুণ্যের অহংকার সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি শুধু স্বপ্নই দেখাননি এবং সেই স্বপ্ন পূরণের পথে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছেন। তিনি একজন স্বপ্নচারী মানুষ, শুধু স্বপ্ন দেখেনই না, বাস্তবায়ন করেন। ২০০৮ সালে জাতীয় নির্বাচনে দলীয় ইশতেহারে 'ডিজিটাল বাংলাদেশ' গড়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার এরপর থেকে উদ্যমী হয়ে এগিসে চলছেন। সে সময় বিরোধী পক্ষ ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে নানা কটাক্ষ, সমালোচনা করলেও আজ তথ্য ও প্রযুক্তিগত সুবিধা মানুষের হাতের মুঠোয়। দ্রুত ডিজিটাল প্রযুক্তির প্রসারে এগিয়ে থাকা দেশের তালিকায় উঠে এসেছে বাংলাদেশের নাম। এটা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী রূপকল্প বাস্তবায়নে আইসিটি উপদেষ্টা হিসেবে পাশে থাকা সজীব ওয়াজেদ জয়ের কারণেই।

তিনি বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ জয়ের কর্মে আজকের বাংলাদেশ যেন সর্বত্র জয়ময়। বেকারত্ব ছিল বাংলাদেশের তরুণদের জন্য অভিশাপ। সেই অভিশপ্ত জনশক্তিই এখন বাংলাদেশের সম্পদ। এখন তরুণ প্রজন্ম চাইলে নিজেকে চাকরির বাজারে না নিয়েই ঘরে বসে টাকা উপার্জন করতে পারে, হতে পারে উদ্যোক্তা।

করোনা মধ্যে সব কিছু বন্ধ থাকলেও আইসিটির জানালা রয়েছে খোলা। এ থেকে সামাজিক, ব্যবসায়িক, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যাংকিংসহ সব খাতে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি। ঘরে বসেই জীবনযাপনের সব উপাদান সচল রেখেছি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির অব্যাহত উন্নতির কল্যাণে। এটাই বদলে যাওয়া বাংলাদেশ। এটাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বের আইসিটি সক্ষমতার রূপকার সজীব ওয়াজেদ জয়ের কারিশমা।



সাতদিনের সেরা