kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

জরুরি বৈঠকে ই-কমার্স নিয়ে যে সিদ্ধান্ত নিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জুলাই, ২০২১ ০২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জরুরি বৈঠকে ই-কমার্স নিয়ে যে সিদ্ধান্ত নিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়

ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসা করা কম্পানিকে বিজনেস আইডেনটিফিকেশন নাম্বার (বিআইএন) সংগ্রহ করতে হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যসচিব। এ ছাড়া বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে আলোচনা-সমালোচনার মুখে থাকা ইভ্যালি, ধামাকা শপিং, আলেশা মার্টসহ দেশের বিভিন্ন ই-কমার্স কম্পানির ব্যাবসায়িক মডেলগুলো যাচাই করবে সরকার।

গতকাল রবিবার ই-কমার্স কম্পানিগুলো নিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক জরুরি বৈঠক শেষে এ কথা বলেন বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ।

বাণিজ্যসচিব জানান, যেসব কম্পানি সম্প্রতি চালু হওয়া ই-কমার্স নীতিমালা মানবে না, তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেবে মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় তাদের বিজনেস মডেলগুলোও পর্যালোচনা করবে। কোনো প্রতিষ্ঠানের বিজনেস মডেল যদি দেশের চলমান আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হয় তবে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাণিজ্যসচিব জানান, বর্তমানে দেশে ব্যবসা করা সব ই-কমার্স কম্পানিকে অবশ্যই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধন করে বিআইএন নাম্বার সংগ্রহ করতে হবে। কেউ বিআইএন নিতে ব্যর্থ হলে বিটিআরসির মাধ্যমে তাদের ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেওয়া হবে। একই সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসা করা কম্পানিগুলোকেও এ নাম্বার সংগ্রহ করতে হবে বলে তিনি জানান।

এ ছাড়া নতুন গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পুরনো গ্রাহকদের দেনা পরিশোধ না করতে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ওই বৈঠকে। ইভ্যালিসহ অন্যান্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলো যদি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পণ্য ডেলিভারি বা রিফান্ড না করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের মামলা করার পরামর্শ দেন বাণিজ্যসচিব।

বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা ও ই-ক্যাবের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা