kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৮। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২০ সফর ১৪৪৩

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আদিবাসীদের টিকা দিতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২৭ জুন, ২০২১ ০০:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আদিবাসীদের টিকা দিতে হবে

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। ফাইল ছবি

আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। এ ছাড়া আসন্ন জনশুমারিতে আদিবাসীদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে জানান তিনি। শনিবার (২৬ জুন) জনশুমারি-২০২১ আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বিভাজিত ও অন্তর্ভুক্তিমূলক পরিসংখ্যানে শীর্ষক এক ওয়েবিনারে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, আদিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নে সরকার কাজ করছে।

তিনি বলেন, আদিবাসীরা মহামারি করোনাভাইরাসের টিকা আগে পেতে পারেন। কারণ তারা অধিকাংশই গ্রামে বাস করেন। তাদের খুঁজে বের করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দিতে আমি সরকার বরাবর অবশ্যই দাবি তুলে ধরব।

এম এ মান্নান বলেন, কভিডের কারণে ২০২১ সালের জনশুমারি সঠিক সময়ে শুরু হতে পারেনি। জানুয়ারিতে হওয়ার কথা থাকলে তা আমরা অক্টোবরে শুরু করব। এবারে জনশুমারিতে আমরা স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্ত করব।

তিনি বলেন, আমাদের ইনস্ট্রাকশন দেওয়া আছে, যে এলাকায় কাজ হবে, তথ্য সংগ্রহে সে এলাকার মানুষকে নিতে হবে। আদিবাসী এলাকার তথ্য সংগ্রহে সেখানকার স্থানীয়দের সহায়তা নেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে আদিবাসী বিষয়ক সংসদীয় ককাসের আহ্বায়ক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, যে লোকবল দিয়ে জনশুমারি করা হবে তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিতে হবে। যেসব এনজিও আদিবাসীদের নিয়ে কাজ করে তারা যদি সহায়তা করে তাহলে জনশুমারির কাজটা সহজ হবে।

তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদে কোনো সমস্যা সমাধানে বিশেষ কমিটি কাজ করে। জনশুমারিতে আদিবাসীদের অন্তর্ভুক্তিতে এই বিশেষ কমিটিকে কাজে লাগানো যেতে পারে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, প্রত্যেক আদমশুমারিতে সুকৌশলে আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে এড়িয়ে চলার একটা প্রবণতা লক্ষ করা যায়। এর ফলে আমাদের আদিবাসী জনগোষ্ঠী অবহেলিত হচ্ছে। তাদের শিক্ষা, অর্থনৈতিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

এএলআরডি ও বণিক বার্তা আয়োজিত অনলাইন বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন মানবাধিকারকর্মী খুশী কবির, ব্যারিস্টার রাজা দেবাশীষ রায় প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা