kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

সচেতনতাই ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনতে পারে

ইমদাদুল হক মিলন

অনলাইন ডেস্ক   

২২ জুন, ২০২১ ০৮:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সচেতনতাই ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনতে পারে

কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন। ফাইল ছবি

কালের কণ্ঠের সম্পাদক ও ইডাব্লিউএমজিএল-এর পরিচালক ইমদাদুল হক মিলন বলেছেন, কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় মৃদু ভূকম্পন অনুভূত হচ্ছে। যখনই এসব ছোটখাটো ভূমিকম্পের ঘটনা ঘটে, তখনই আমাদের মনে আতঙ্ক তৈরি হয়। সবাই নড়েচড়ে ওঠে। গণমাধ্যমেও বিষয়টি নিয়ে খবর প্রকাশিত হয়। এরপর অনেক দিন ভূমিকম্প না হলে সেই আতঙ্ক কেটে যায়। এই ভুলে যাওয়াটা আমাদের জন্য কী ধরনের বিপদ তৈরি করছে তা গুরুত্ব দিয়ে ভাবা দরকার।

কালের কণ্ঠ ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের যৌথ উদ্যোগে ‘ভূমিকম্পের ঝুঁকি ও প্রস্তুতি’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ মন্তব্য করেন তিনি। গত ১৬ জুন বুধবার কালের কণ্ঠ’র সম্মেলনকক্ষে এ গোলটেবিল অনুষ্ঠিত হয়।

কালের কণ্ঠ সম্পাদক বলেন, সম্প্রতি সিলেটে এক দিন পাঁচবার এবং আরেক দিন দুইবার মৃদু ভূকম্পন হয়েছে। এতে একটি স্কুল ভবন এবং দুটি ছয়তলা ভবন সামান্য হেলে পড়েছে। ডাউকী ফল্ট থেকে ভূকম্পনের উৎপত্তির কথা আমরা জানতে পারি। এটি বাংলাদেশকে যেকোনো সময় বড় সমস্যায় ফেলে দিতে পারে। তাই বাংলাদেশ বড় ধরনের ঝুঁকির মধ্যে আছে।

তিনি আরো বলেন, দুর্যোগ বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে আমরা জানতে পারি, দেশের কোন কোন শহর বেশি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে আছে। ঝুঁকির মাত্রা বিবেচনায় দেশের সব জায়গায় ভূমিকম্প বিষয়ে নিয়মিত সচেতনতামূলক কার্যক্রম ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা কমিয়ে আনতে সহায়তা করবে।

যেকোনো দুর্যোগের বিষয়ে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কালের কণ্ঠসহ ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রতিষ্ঠানগুলো বরাবরই ভূমিকম্প সচেতনতার বিষয়গুলো গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করে আসছে। ভবিষ্যতেও সরকারি-বেসরকারি সব ধরনের উদ্যোগের সঙ্গে থাকব আমরা।



সাতদিনের সেরা