kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

প্রকৌশল সংস্থার প্রধানদের নিম্নধাপে রাখার প্রতিবাদ আইইবির

অনলাইন ডেস্ক   

২১ জুন, ২০২১ ২০:৩৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রকৌশল সংস্থার প্রধানদের নিম্নধাপে রাখার প্রতিবাদ আইইবির

সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে ১ম গ্রেড প্রাপ্ত প্রকৌশল সংস্থার প্রধানদের নিম্নধাপে রাখায় প্রকৌশলীদের একমাত্র জাতীয় প্রতিষ্ঠান ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) জোর প্রতিবাদ জানিয়েছে। একই সাথে প্রকাশিত সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০) অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছে আইইবি।

আজ সোমবার (২১ জুন) আইইবি’র সম্মানী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু),পিইঞ্জ. এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান।

বিবৃতিতে আইইবি’র সম্মানী সাধারণ সম্পাদক বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সরকারী ওয়েব সাইটে প্রকাশিত সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০)-এ ২০১৪ সালে প্রকৌশল সংস্থা প্রধানদের উন্নীত ১ম গ্রেড আমলে না নেওয়ার বিষয়টি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এ ব্যাপারে দেশের প্রকৌশল সমাজ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। যা আইইবি’র ৬২২তম কেন্দ্রীয় কাউন্সিল সভায় সদস্যগণ সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০) অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছে।

বিবৃতিতে প্রকৌশলী মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু),পিইঞ্জ. আরো বলেন, আইইবি’র অনেক বছরের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রকৌশলী বান্ধব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন প্রকৌশল সংস্থার প্রধান’কে ১ম গ্রেড প্রদান করে, যা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বিগত ১৭/০২/২০১৪ তারিখের স্মারক নং-০৫.১৩৩.০০৬.০৩.১৬১.০৪.২০১২-৪৮-এর মাধ্যমে ১ম গ্রেডে উন্নীত করে প্রজ্ঞাপন জারী করে। যার ফলে সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০)-এ ১ম গ্রেডের অন্যান্য পদগুলোর সাথে প্রকৌশল সংস্থা প্রধানদের ১ম গ্রেডের পদগুলো একই ধাপে রেখে ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে সংশোধিত হওয়ার কথা। কিন্তু ২০১৪ সালের উক্ত আদেশ অগ্রাহ্য করে ২০২০ সালের রিভাইর্ড ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০)-এ ১৯৮৬ সালের ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্স অপরিবর্তনীয় রাখা হয়েছে যা প্রকৌশলীদের জন্য অবমাননাকর।

তিনি আরো বলেন, সারা বিশ্ব যখন কোভিড-১৯ ভাইরাসের মহামারিতে আক্রান্ত ঠিক তখন সরকারের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা একটি মহল এই রকম একটি প্রশ্নবিদ্ধ ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্স মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে, একদিকে যেমন প্রকৌশলীদের ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্ছিত করেছে, অন্য দিকে প্রকৌশলীদের সঙ্গে সরকারের দূরত্ব সৃষ্টি করে সুকৌশলে সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-’কে ব্যাহত করার ষড়যন্ত্র করছে বলে আইইবি মনে করে। কেননা এ কোভিড মহামারির সময়ও প্রকৌশলীরা সম্মুখ সারীর যোদ্ধা হিসেবে দেশের উন্নয়ন মূলক কাজে অবদান রাখছেন।

বিবৃতিতে আইইবির সম্মানী সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রকাশিত সংশোধিত ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সে (আপটু ২০২০) বাতিল করে জনপ্রসাশন মন্ত্রণালয় কর্তৃক ১৭/০২/২০১৪ তারিখে জারীকৃত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী প্রকৌশল সংস্থার প্রধানগণ’কে ১ম গ্রেডে অর্ন্তভূক্ত করে অবিলম্বে ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্স সংশোধন করে প্রকাশ করতে সরকারের নিকট আইইবি জোর দাবি জানাচ্ছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।



সাতদিনের সেরা