kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

‘পরিবেশ ও প্রতিবেশ দূষণের ৭০ ভাগ ঘটনার পরিবেশ অধিদপ্তরের দায় আছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জুন, ২০২১ ২১:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘পরিবেশ ও প্রতিবেশ দূষণের ৭০ ভাগ ঘটনার পরিবেশ অধিদপ্তরের দায় আছে’

‘পরিবেশ ও প্রতিবেশ দূষণের শতকরা ৭০ ভাগ ঘটনার ক্ষেত্রে পরিবেশ অধিদপ্তরের দায় আছে।’ বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২১ উপলক্ষ্যে আজ শনিবার (১৯ জুন) সকাল ১১টার দিকে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের (বিআইপি) উদ্যোগে ‘বাস্তুসংস্থান পুনরুদ্ধারে পরিকল্পনা’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এমন তথ্য তুলে ধরেন বক্তারা।

বিআইপি’র গবেষণায় জীববৈচিত্র্য ও বাস্তুসংস্থান ধ্বংসের কারণ বিশ্লেষণের জন্য পরিবেশগত বিপর্যয়ের ১০০টি কেইস স্ট্যাডি বিশ্লেষণ করা হয়েছে। পরিবেশগত বিপর্যয়ের ঘটনাসমূহ পর্যালোচনার মাধ্যমে বিআইপি'র সমীক্ষায় পরিলক্ষিত হয় যে, পরিবেশ ও প্রতিবেশ দূষণের শতকরা ৭০ ভাগ ঘটনার ক্ষেত্রে পরিবেশ অধিদপ্তরের দায় আছে। এছাড়া শতকরা ৫০ ভাগ ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসনের দায় রয়েছে। পরিবেশ দূষণের ঘটনা বিশ্লেষণে নগর কর্তৃপক্ষ, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনে ৫০ শতাংশ; শিল্প কারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ও পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ৫০ শতাংশ, বনবিভাগ ৩০ শতাংশ, সুষ্ঠু পরিকল্পনার অভাব ৬০ শতাংশ এবং জনগণের উদাসীনতা কারণে ৪০ শতাংশ ক্ষেত্রে দায় রয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিআইপি'র সভাপতি পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আকতার মাহমুদ বলেন, পরিবেশের প্রতি আমাদের সংবেদনশীল হতে হবে এবং পরিবেশের প্রতি যত্নশীল থেকে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালাতে হবে। তিনি আরো বলেন, উন্নয়ন সংক্রান্ত সকল নীতিমালায় পরিবেশের বিষয়টি গুরুত্ব দিতে হবে এবং পরিবেশ নিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না। পাশাপাশি টেকসই উন্নয়নের বৈশ্বিক লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখেই আমাদের পরিকল্পনা ও উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। 
 
সভায় বিআইপির সাধারণ সম্পাদক পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ সমগ্র বাংলাদেশের বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত পরিবেশগত বিপর্যয়ের প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়া আলোচনা সভায় পরিবেশ প্রতিবেশ রক্ষায় বিআইপির পক্ষ থেকে কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে খুলনা সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবির-উল-জব্বার, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ মো মাকসুদ হাশেম, রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নগর পরিকল্পনাবিদ আজমেরী আশরাফী, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নগর পরিকল্পনাবিদ মো মঈনুল ইসলাম, কক্সবাজার নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরের নগর পরিকল্পনাবিদ নাজিম উদ্দীন, লাকসাম পৌরসভার নগর পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, রংপুর সিটি করপোরেশনের নগর পরিকল্পনাবিদ মো নজরুল ইসলাম, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহকারী নগর পরিকল্পনাবিদ আবু সাঈদ, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহকারী অথরাইজড অফিসার পরিকল্পনাবিদ তামান্না বিনতে রহমান, সিলেট সিটি করপোরেশনের নগর পরিকল্পনাবিদ তানভীর রহমান যুক্ত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা