kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

এ সপ্তাহেই বাসায় ফিরছেন খালেদা জিয়া

এনাম আবেদীন   

১৯ জুন, ২০২১ ০১:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এ সপ্তাহেই বাসায় ফিরছেন খালেদা জিয়া

হাসপাতালের বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে দূরে (ক্রস ইনফেকশন) রাখতে চলতি সপ্তাহের যেকোনো একদিন বাসায় ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। জানা গেছে, তাঁর চিকিৎসার জন্য গঠিত ১০ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড এই বিষয়ে আজই সিদ্ধান্ত নেবে। অধ্যাপক ড. এফ এম সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন বোর্ডের বিকেলে বৈঠকে বসার কথা রয়েছে।

এদিকে খালেদা জিয়াকে বাসায় নেওয়ার প্রস্তুতি হিসেবে তাঁর কক্ষের শীতাতপ নিয়ন্ত্রণব্যবস্থা ঠিক করাসহ কয়েক দিন ধরে গুলশানের ‘ফিরোজা’য় ধোয়া-মোছার কাজ চলছে বলে জানা গেছে। চিকিৎসকদের পরামর্শে বাসায়ও খালেদা জিয়া আইসোলেশনে এবং নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকবেন।

জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল শুক্রবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) বাসায় ফেরার বিষয়টি মেডিক্যাল বোর্ডের পরামর্শের ওপর নির্ভর করছে। শনিবার বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।’   

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর গত ২৮ এপ্রিল থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন খালেদা জিয়া। শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে গত ৩ মে তাঁকে সিসিইউতে (ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট) নেওয়া হয়। অবস্থা কিছুটা ভালোর দিকে গেলে গত ৩ জুন তাঁকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়। এখনো তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন।

হাসপাতালে থাকতে খালেদা জিয়ার মোট পাঁচবার জ্বর আসে। এটাকেই চিকিৎসকরা ‘ক্রস ইনফেকশন’ বলে মনে করছেন। তাঁরা বলছেন, এভারকেয়ার হাসপাতালের সর্বোচ্চ চিকিৎসা খালেদা জিয়াকে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু করোনা-পরবর্তী জটিলতায় তাঁর শারীরিক অবস্থা যেখানে দাঁড়িয়েছে, তাতে তাঁর বিশেষায়িত চিকিৎসা দরকার। বিদেশে নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে ‘মাল্টিসিস্টেম ডিজিজ ম্যানেজমেন্টের জন্য অগ্রিম সুবিধা পাওয়া যায়’ এমন একটি উচ্চতর কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার সুপারিশ করেছে মেডিক্যাল বোর্ড। 

বিএনপির দলীয় সূত্রগুলো জানাচ্ছে, চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার চেষ্টা দল ও পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো অব্যাহত আছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলে এ জন্য নানাভাবে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তবে বিশেষ অগ্রগতি এখন পর্যন্ত হয়নি।



সাতদিনের সেরা