kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৯ জুলাই ২০২১। ১৮ জিলহজ ১৪৪২

কিশোর গ্যাং ‘রোমান্টিকের’ আটজন আটক

‘রক কিংয়ের’ পাঁচ সদস্য রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক   

১৮ জুন, ২০২১ ০১:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোর গ্যাং ‘রোমান্টিকের’ আটজন আটক

রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থানা এলাকা থেকে ‘রোমান্টিক গ্রুপ’ নামে একটি কিশোর গ্যাংয়ের আট সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-২। গতকাল বৃহস্পতিবার র‌্যাব জানায়, বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত পৃথক অভিযানে তাদের আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয়েছে সাতটি ছুরি, একটি খুর এবং ছয়টি মোবাইল ফোনসেট। অস্ত্রগুলো দিয়ে তারা মানুষকে ভয় দেখানোসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড করত।

এদিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় কিশোর গ্যাং ‘রক কিং’র পাঁচ সদস্যের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলামের ভার্চুয়াল আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। রিমান্ডে যাওয়া আসামিরা হলেন ইমন আহম্মেদ শুভ, মো. সুমন মিয়া, আজাহারুল ইসলাম ওরফে দোলন, অন্তর হোসেন মোল্লা ও নাজমুল হাসান ওরফে সৈকত।

র‌্যাব-২-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. ফজলুল হক বলেন, পল্লবীতে আটককৃতরা বিভিন্ন দলে ভাগ হয়ে ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক সেবন, যৌন হয়রানি, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের আরো অনেক অভিযোগ পেয়ে যাচাই-বাছাই চলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়াসহ নানা অনৈতিক কাজে তারা লিপ্ত বলে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে। এলাকায় প্রভাব বিস্তারে দলবদ্ধ হয়ে সংঘাত সৃষ্টি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করে তারা। নিজেদের গ্রুপের আধিপত্য বজায় রাখতে অন্যান্য কিশোর গ্যাংয়ের সঙ্গে মারামারিসহ নানা সশস্ত্র সংঘর্ষেও জড়াত। 

যাত্রাবাড়ী থানার মামলায় আসামিদের গতকাল কারাগার থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে উপস্থিত দেখানো হয়। এরপর আদালত তাদের মাদক মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোসহ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত সোমবার রাতে র‌্যাব-৩ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে যাত্রাবাড়ীর শনির আখড়ার গোবিন্দপুর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ইয়াবা বড়ি, সুইচ গিয়ার চাকু, স্টিলের ব্যাটন, ধাতব চেইন ও পাঞ্চার যন্ত্র। বুধবার তদন্তকারী কর্মকর্তা যাত্রাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক মো. মনির হোসেন আসামিদের গ্রেপ্তার দেখানোসহ প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করেন।



সাতদিনের সেরা