kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

কুষ্টিয়ার ডাবল মার্ডার, ৪ আসামির জামিন প্রশ্নে আপিল বিভাগে আদেশ ২০ জুন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জুন, ২০২১ ১৮:৫৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কুষ্টিয়ার ডাবল মার্ডার, ৪ আসামির জামিন প্রশ্নে আপিল বিভাগে আদেশ ২০ জুন

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা স্কুল শিক্ষক মুজিবুর রহমান ও তার ভাই মিজানুর রহমান হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত চার আসামির জামিন প্রশ্নে করা রিভিউ আবেদনের ওপর আগামী ২০ জুন আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ বৃহষ্পতিবার শুনানি শেষে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেন। আদালতে চার আসামির পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হেসেন। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ।

সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করা নিয়ে ২০১৬ সালের ২৫ এপ্রিল স্কুল শিক্ষক মুজিবুর রহমান ও তার ভাই মিজানুর রহমানকে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় নিহত স্কুল শিক্ষক মুজিবুর রহমানের ছেলে জাহারুল ইসলাম বাদী হয়ে ভেড়ামারা থানায় মামলা করেন। এ মামলায় পুলিশ ২০১৭ সালের ৯ মে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। কুষ্টিয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচার শেষে ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বর রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে ৪ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড, ৭ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং একজনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তরা হলেন- কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপনগর গ্রামের কমল হোসেন মালিথা, ফকিরাবাদ গ্রামের কামরুল প্রামাণিক ও সুমন প্রামাণিক এবং একই গ্রামের নয়ন শেখ।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ভেড়ামারা উপজেলার ফকিরাবাদ গ্রামের নজরুল শেখ ও আব্দুর রহিম ওরফে লালিম শেখ, একই গ্রামের মাহফুজুর রহমান, হৃদয় আলী, সম্রাট আলী প্রামাণিক, গোলাপনগর গ্রামের জিয়ারুল ইসলাম ও আশরাফ মালিথা। আর আরিফ মালিথাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স আসে হাইকোর্টে। পাশাপাশি কারাবন্দী আসামিরা আপিল করেন। এই ডেথ রেফারেন্স ও আপিল হাইকোর্টে বিচারাধীন। এ অবস্থায় যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত নজরুল শেখ, আব্দুর রহিম ওরফে লালিম শেখ, জিয়ারুল ইসলাম ও আশরাফ মালিথাকে গত বছর ২৪ সেপ্টেম্বর জামিন দেন হাইকোর্ট। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে এই জামিন স্থগিত করে দেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত। পরবর্তীতে নিয়ম অনুসারে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানি হয়। আপিল বিভাগ জামিন স্থগিতের আদেশ বহাল রাখেন। আর হাইকোর্টকে আসামিদের আপিল দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন। আপিল বিভাগের এ আদেশ পুর্নবিবেচনা চেয়ে চার আসামি রিভিউ আবেদন করেন। এ আবেদনের ওপর শুনানি সম্পন্ন হয়েছে।



সাতদিনের সেরা