kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

ব্যাটালিয়ন আনসারে যুক্ত হলেন ৯৭৯ জন নতুন সদস্য

প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জুন, ২০২১ ১০:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যাটালিয়ন আনসারে যুক্ত হলেন ৯৭৯ জন নতুন সদস্য

ব্যাটালিয়ন আনসারে যুক্ত হলেন ৯৭৯ জন নতুন সদস্য। গতকাল বুধবার (১৬ জুন) গাজীপুরের সফিপুরে বাংলাদেশ আনসার ভিডিপি একাডেমিতে এসব সদস্যদের ৬ মাসের মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ  কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানের সালাম গ্রহন করেন। এছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন ও আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাহিনীর অতিরিক্ত মহাপরিচালক, কমান্ড্যান্ট, উপ-মহাপরিচালক (প্রশাসন), উপ-মহাপরিচালক (অপারেশনস)-সহ সদর দপ্তর ও একাডেমির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এ বাহিনীর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল জানানো হয়, ৯৭৯ জন নবনিযুক্ত ব্যাটালিয়ন আনসার ৬ (ছয়) মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে সমাপনী কুচাকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে। কুচাকাওয়াজের শুরুতেই প্রধান অতিথি একটি সুসজ্জিত খোলা জীপে প্যারেড পরিদর্শন করেন। এ সময় বাহিনীর মহাপরিচালক ও প্যারেড কমান্ডার তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণার্থীরা ৬ সারিতে মার্চ পাস্ট করে প্রধান অতিথিকে অভিবাদন জানান। প্রধান অতিথি কৃতী ও চৌকস প্রশিক্ষণার্থীদের পুরস্কার প্রদান করেন। প্রশিক্ষণে- সজীব মন্ডল শ্রেষ্ঠ ড্রিল, মো. মহিউদ্দিন ফাহিম শ্রেষ্ঠ ফায়ারার এবং রাকিব আকন্দ চৌকস প্রশিক্ষণার্থী ব্যাটালিয়ন আনসার হিসেবে প্রথম স্থান অধিকার করেন।

প্রধান অতিথি প্রশিক্ষণার্থী নবীন ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্যদের উদ্দেশ্যে তাঁর দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ থেকে বাহিনীর সুনাম এবং ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রাখতে নিজেদের উপর অর্পিত দায়িত্ব ও কতর্ব্য সঠিকভাবে পালন করে আপনারা দেশ এবং জাতির সার্বিক উন্নয়নে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে সক্ষম হবেন।

এছাড়া তিনি সুশৃঙ্খল প্রশিক্ষণ আয়োজন ও পরিচালনার জন্য আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালকসহ প্রশিক্ষণের সাথে সম্পৃক্ত সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা ও প্রশিক্ষকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরে সংঘবদ্ধ মার্চ পাস্ট-এর মাধ্যমে কুচকাওয়াজের সমাপ্তি ঘটে। 



সাতদিনের সেরা