kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

জবির খেলার মাঠ দখলে নিয়ে ডিএসসিসির খুঁটি!

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০২১ ২০:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জবির খেলার মাঠ দখলে নিয়ে ডিএসসিসির খুঁটি!

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ ধুপখোলা দখলে নিয়ে মার্কেট ও পার্ক নির্মাণের উদ্দেশ্য খুঁটি বসিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও সিটি করপোরেশন মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

জানা যায়, গত ১০ জুন দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৪৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শামসুজ্জোহা ও সিটি কর্পোরেশনের উপ সহকারী ইঞ্জিনিয়ার হরিদাস মল্লিক মাঠের ভেতর ম্যাপ অনুযায়ী মাঠের চার কর্ণারে খুটি বসান। তবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ হলেও কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে কাজ শুরু করেছেন তারা।

এ বিষয়ে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৪৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শামসুজ্জোহা বলেন, 'আমরা মাঠ সংস্কার করার জন্য খুঁটি দিয়েছি৷ এটা সিটি কর্পোরেশনের কাজ। আপনারা প্রকল্প পরিচালক ও ইঞ্জিনিয়ারদের সাথে কথা বলেন।'

দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা উপ সহকারী ইঞ্জিনিয়ার হরিদাস মল্লিক বলেন, 'আমি প্রকল্প পরিচালকের অধীনে কাজ করি। ধূপখোলার পুরো মাঠজুড়ে মার্কেট, ক্রিকেট খেলার মাঠসহ আরো বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে। আগে মাঠের চারপাশের পুরাতন ভবন ভেঙে সেখানে নতুন করে মার্কেট করা হবে। সাথে সাথে খেলার মাঠ সংস্কার করা হবে।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মো. মোস্তফা কামাল বলেন, 'আমরা পরিদর্শন করেছি। গেন্ডারিয়া থানার ওসি ও সিটি করপোরেশনের সাথে কথা বলেছি। এছাড়া প্রকল্প পরিচালককে কাজ বন্ধ করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সাথে বসব।'

উল্লেখ্য, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গেন্ডারিয়া এলাকায় ধূপখোলায় তিনটি মাঠের মধ্যে একটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ জমিটি খেলার মাঠ হিসেবে দেন। এরপর থেকে এটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠ হিসবে পরিচিত। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে এটি কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার জন্য ব্যবহার করে থাকে। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সময়ে তাদের বিভিন্ন টুর্নামেন্ট পরিচালনা ও শরীর চর্চা করে থাকে।



সাতদিনের সেরা