kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

‘গার্ড অব অনার’ প্রদানে নারী না রাখার প্রস্তাব চ্যালেঞ্জ করে রিট

শুনানি মুলতবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জুন, ২০২১ ২০:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘গার্ড অব অনার’ প্রদানে নারী না রাখার প্রস্তাব চ্যালেঞ্জ করে রিট

মৃত্যুবরণকারী মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান জানাতে তার কফিনে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার সময় নারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) না রাখার বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রস্তাবের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন দাখিল করা হয়েছে। এ রিট আবেদনের ওপর শুনানি চার সপ্তাহের জন্য মুলতবি করেছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রিট আবেদনের ওপর শুনানি মূলতবি করেন। মানবাধিকার সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ল’ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (এফএলএডি) এর আইন ও গবেষণা বিভাগের পরিচালক ব্যারিস্টার কাজী মারুফুল আলম এ রিট আবেদন দাখিল করেন। রিট আবেদনে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সচিবসহ তিনজনকে বিবাদী করা হয়েছে। আবেদনে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ কেন বৈষম্যমূলক, বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়েছে। আদালতে রিট আবেদনকারীপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট ফাওজিয়া করিম ফিরোজ।

আজ মঙ্গলবার শুনানিকালে আদালত বলেন, বিষয়টি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ মাত্র। এমন সুপারিশ গেজেট আকারে প্রকাশিত হলে তখন এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আদেশ দেওয়া হবে। তাই সে পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। 

এসময় অ্যাডভোকেট ফাওজিয়া করিম আদালতকে বলেন, সংসদীয় স্থায়ী কমিটি এমন সব সিদ্ধান্ত দিচ্ছে যা শুনলে মনে হয় তারা ফতোয়া দিচ্ছে। দিনে দিনে তারা ফতোয়া দেওয়া কমিটিতে পরিণত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, মৃত্যুবরণকারী মুক্তিযোদ্ধাকে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার সময় যেসব এলাকায় নারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রয়েছেন সেখানে বিকল্প খোঁজার সুপারিশ করে সংসদীয় কমিটি। গত ১৩ জুন সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। পাশাপাশি গার্ড অব অনার দিনের বেলায় আয়োজন করার সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি শাজাহান খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রাজি উদ্দিন আহমেদ, রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম, কাজী ফিরোজ রশীদ, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল এবং মোছলেম উদ্দিন আহমদ অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি শাজাহান খান এমপি সাংবাদিকদের বলেন, নারীরা তো জানাজায় থাকতে পারেন না। তাই নারী ইউএনও গার্ড অব অনার দিতে গেলে স্থানীয় পর্যায়ে অনেকে প্রশ্ন তোলেন। সেজন্য এ বিষয়ে বৈঠকে একটি প্রস্তাব এসেছে। নারীর বিকল্প একজন পুরুষকে দিয়ে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার বিষয়টি এসেছে। আমরা মন্ত্রণালয়কে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছি।

সংসদীয় কমিটির এই সুপারিশের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা এবং তা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে সোমবার বিবৃতি দেন সুপ্রিম কোর্টের ১৭ আইনজীবী।



সাতদিনের সেরা