kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ শুরু হবে : মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জুন, ২০২১ ১৮:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ শুরু হবে : মন্ত্রী

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরে বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। তিনি সংসদে জানান, বিষয়টি নিয়ে তাদের সাথে আলোচনা হয়েছে। গত ১৬ ও ১৭ ফেব্রুয়ারি ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের সভা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে লিখিত প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে এ সংক্রান্ত প্রশ্নটি উত্থাপন করেন সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মোরশেদ আলম।

জবাবে মন্ত্রী আরো জানান, বিগত ১০ (২০১১-২০) বছরে ৫৯ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪৩ জন কর্মী বিদেশে গেছেন। যার মধ্যে ২০১০ সালে সর্বোচ্চ ১০ লাখ ৮ হাজার ৫২৫ জনের কর্মসংস্থান হয়েছে। ২০২০ সালে সর্বনিম্ন ২ লাখ ১৭ হাজার ৬৬৯ জন কর্মী বিদেশে গেছেন।

একই প্রশ্নের মন্ত্রী জানান, করোনার মধ্যে বৈদেশিক শ্রমবাজার সম্পর্কে মিশনসমূহ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। সৌদি আরব, ইউএই, বাহারাইন, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরসহ ২৫টি দেশে কর্মসংস্থানে দক্ষ কর্মী তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। নতুন করে পোল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, উজবেকিস্তানের শ্রমবাজারে লোক পাঠানো শুরু হয়েছে। কম্বোডিয়া, সেসেলম ও চীনেও কর্মীরা যাচ্ছেন। এ ছাড়া সম্ভাবনাময় দেশসমূহের সাথে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সরকারি দলের দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে ইমরান আহমদ জানান, ১৯৯১ সাল থেকে বিদেশে নারীকর্মী পাঠানো শুরু হয়। ওই সময় থেকে এ পর্যন্ত (মে ২০২১) মোট নয় লাখ ৫৩ হাজার ২৩৯ জন নারীকর্মী বিদেশে গেছেন। বিদেশে গমনেচ্ছু শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য উপজেলা পর্যায়ে আরো ৭১টি টিটিসি স্থাপনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান।



সাতদিনের সেরা