kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

৪৯ গায়েবি মামলার বাদীকে খুঁজতে হাইকোর্টে রিটের শুনানি ১৩ জুন

নিজস্ব প্রতিবেদক    

৮ জুন, ২০২১ ১৩:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪৯ গায়েবি মামলার বাদীকে খুঁজতে হাইকোর্টে রিটের শুনানি ১৩ জুন

রাজধানীর শান্তিবাগের বাসিন্দা একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন এলাকায় দাখিল করা ৪৯টি মামলার বাদীকে খুঁজে বের করার জন্য সিআইডিকে নির্দেশনা দিতে হাইকোর্টে করা রিট আবেদনের ওপর শুনানি ১৩ জুন।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার (৮ জুন) এক আদেশে শুনানির জন্য এই দিন ধার্য করেন।

একরামুল আহসান কাঞ্চনের পক্ষে অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বসির গতকাল সোমবার (৭ জুন) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট  শাখায় রিট আবেদন দাখিল করেন। আবেদনে একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে করা সব মামলায়ই গায়েবি ও ভুয়া দাবি করা হয়েছে।

রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের আইজি, সিআইডি ও এসরি অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শক, র‍্যাব মহাপরিচালক, ঢাকার পুলিশ কমিশনারসহ ৪০ জনকে বিবাদী করা হয়েছে। রিট আবেদনটি আজ শুনানির জন্য গ্রহণ করার আবেদন জানান তাঁর আইনজীবী অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বসির। এরপর আদালত শুনানির দিন ধার্য করে আদেশ দেন।

রিট আবেদনের বিষয়ে অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বসির বলেন, ঢাকার শান্তিবাগ এলাকার বাসিন্দা একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, চুরি, ডাকাতি, মানবপাঁচারসহ বিভিন্ন অভিযোগে ৪৯টি মামলা করা হয়। কিন্তু একটি মামলারও বাদী খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ বিবেচনায় একরামুল আহসান কাঞ্চন ৩৫টি মামলায় নিম্ন আদালত থেকেই খালাস পেয়েছেন। ১৪টি মামলা এখনও বিচারাধীন। তবে এসব মামলায় তিনি জামিন পেয়েছেন।

সবমিলে ওইসব মামলায় ১ হাজার ৪৬৫ দিন কারাভোগ করেছেন একরামুল আহসান কাঞ্চন। এভাবে গায়েবি মামলা দিয়ে হয়রানি করায় তাঁর মৌলিক অধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে। একারণে একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে যারা মামলা করেছেন সেসব বাদীকে খুঁজে বের করা এবং একরামুল আহসান কাঞ্চনকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা