kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

রাজধানীতে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশ

‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ইসরায়েলের বিচার করতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মে, ২০২১ ১৯:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ইসরায়েলের বিচার করতে হবে’

ফিলিস্তিনী জনগণের ওপর ইসরায়েল সৈন্যদের নির্বিচারে হত্যাযজ্ঞ ও নিপীড়ন-নির্যাতনের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি। পার্টির পক্ষ থেকে ফিলিস্তিনে গণহত্যার দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ইসরায়েলের বিচার ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি প্রদানের দাবি জানানো হয়েছে।

আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এই দাবি জানানো হয়। পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, পলিটব্যুরোর সদস্য কামরূল আহসান, ঢাকা মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল হক আমিন, যুব মৈত্রীর সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্স, কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তফা আলমগীর রতন, কিশোর রায়, শাহানা ফেরদৌস লাকী, সাদাকাত হোসেন খান বাবুল, ছাত্রনেতা আব্দুল মোতালেব জুয়েল প্রমুখ।

সমাবেশে সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা আল আকসা মসজিদে প্রার্থনারত মানুষ লক্ষ্য করে ইসরাইয়েলী সেনাবাহিনীর বর্বরোচিত হামলা ও হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী ও তাদের আবাস ভূমি। তারপরও সেখানে গণহত্যা চালানো হচ্ছে। এই গণহত্যা বন্ধ করতে হবে।

তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ফিলিস্তিনের মহান নেতা ইয়াসির আরাফাত আমাদের পক্ষে দাঁড়িয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ন্যায্যতা তুলে ধরেছিলেন। আজ সময় এসেছে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র দাবি বাস্তবায়নের। স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র মর্যাদা প্রদানে জাতিসংঘের নেওয়া দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি বিশ্ববাসীকে এই নগ্ন হত্যা হামলা রুখে দাঁড়াবার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে আনিসুর রহমান মল্লিক বলেন, বাংলাদেশ শুরু থেকে স্বাধীন প্যালেষ্টাইন রাষ্ট্রের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এসেছে। এই সর্মথন অব্যাহত রাখতে হবে। বাংলাদেশের সংবিধানের বিদেশ নীতিতে জোট নিরপেক্ষ ও সকলের সাথে শান্তিপূর্ণ সহঅবস্থানের যে নীতি, তা বজায় রাখা এবং কোনো সামরিক জোটে যাওয়ার অবকাশ নেই। তিনি অবিলম্বে প্যালেস্টাইন জনগণের আবাসভূমি দখলদার মুক্ত করার দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে ইসরায়েলী পতাকা আগুন দিয়ে পোড়ানো হয়। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পার্টির কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।



সাতদিনের সেরা