kalerkantho

বুধবার । ২ আষাঢ় ১৪২৮। ১৬ জুন ২০২১। ৪ জিলকদ ১৪৪২

কারাগারে কোয়ারেন্টিনে মামুনুল হক ও শিশু বক্তা মাদানী

ওমর ফারুক   

১০ মে, ২০২১ ১৯:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কারাগারে কোয়ারেন্টিনে মামুনুল হক ও শিশু বক্তা মাদানী

হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হক ও শিশু বক্তা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

আজ সোমবার বিকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কেন্দীয় কারাগারের জেলার মাহাবুবুল ইসলাম।

কারা সূত্র জানায়, গতকাল বিকাল ৩ টার দিকে তাকে আনা হয়। করোনাভাইরাসের প্রতিরোধে গত বছর থেকে প্রত্যেক নতুন বন্দিকে কারাগারে আসার পর কোয়ারেন্টিনে রেখে ওয়ার্ডে পাঠানো হচ্ছে। মামুনুল হককেও একই নিয়মে ওয়ার্ডে পাঠানো হবে। তৃতীয় দফায় পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গত ১৮ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন গত ১৯ এপ্রিল মামুনুলকে মোহাম্মদপুর থানার হামলা, মারধর ও চুরির মামলায় প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এরপর গত ২৬ এপ্রিল হেফাজতের সমাবেশকে ঘিরে ২০১৩ সালের পল্টন ও মতিঝিল থানার দুই মামলায় সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। এরপর গত ৪ মে তৃতীয় দফায় তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

২০২০ সালে মোহাম্মদপুর থানায় দায়ের করা একটি হামলা ও নাশকতার মামলায় মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করা হয় বলে পুলিশ জানায়। সম্প্রতি নারায়নগঞ্জের একটি রিসোর্টে নারীসহ ধরা পড়ার পর তিনি ব্যাপক আলোচনায় আসেন। এর ওই নারীও তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

এ ছাড়া ৭ এপ্রিল ভোরে নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দার নিজ বাড়ি থেকে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। তার বিরুদ্ধে গাজীপুরের গাছা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়। ওই মামলায় ১৬ এপ্রিল তাকে দুদিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। এরপর মতিঝিল থানার মামলায় তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।



সাতদিনের সেরা