kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও খাদ্য সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে: সিপিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ মে, ২০২১ ১৯:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও খাদ্য সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে: সিপিবি

জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও খাদ্য সহায়তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সিপিবি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, লকডাউন করতে হলে গরিব মানুষের পেটে খাবার দিতে হবে। তা না হলে মানুষ রাস্তায় খাদ্যের জন্য, কাজের জন্য নেমে আসবে এটাই স্বাভাবিক।

রবিবার বিকেলে পুরানা পল্টন মোড়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি ঢাকা কমিটির সভাপতি মোসলেহউদ্দিন। বক্তৃতা করেন ঢাকা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক আহসান হাবিব লাবলু ও ঢাকা কমিটির সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য খান আসাদুজ্জামান মাসুম।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ ঈদের পূর্বে শ্রমিকদের পাওনা বেতন-বোনাস পরিশোধ, করোনা মহামারিকালে অক্সিজেন সরবরাহ নিয়ে সিন্ডিকেট ব্যবসা বন্ধ ও করোনা টেস্ট সার্বজনীন করার দাবি জানিয়ে বলেন, করোনা মহামারীকালে দেখা যাচ্ছে কিছু কিছু মানুষ অসৎ পথে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে যাচ্ছে। এসব অসৎ ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। যারা অর্থনীতির চাকা সচল রেখেছে সেই শ্রমিকদের পাওনা বেতন-বোনাস অবিলম্বে পরিশোধ করার দাবি জানান তারা।
নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমানে দেখা যাচ্ছে অক্সিজেন নিয়ে সিন্ডিকেট তৈরী হয়েছে। অক্সিজেন সিল্ডিন্ডার ও রিফিলের দাম বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সিন্ডিকেট ভেঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত অক্সিজেন মজুত বাড়াতে হবে ও সকল হাসপাতালে আইসিও কার্যকর করতে হবে। করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে স্বাস্থ্য খাতে লুটপাটকারীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যবস্থার দাবি জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, আজ দেশের করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে সরকারসহ কেউই জানেন না। গরিব মেহনতী মানুষ করোনা পরীক্ষা করাতে পারছেন না। করোনা টেস্ট সার্বজনীন না করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসা করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। আজ সরকারী উদ্যোগে যে টেস্ট করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে সেখানে লম্বা লাইন দিয়ে টেস্ট দিলেও তার ফল পেতে অনেক দেরী হয়। অথচ উন্নত দেশগুলোতে কয়েক ঘন্টার মধ্যে টেস্টের ফল পাওয়া যায়। সকল মানুষকে করোনা টেস্টের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানান তারা।



সাতদিনের সেরা