kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে বিশ্ব রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট দিবস পালিত

পৃথিবীকে আরো সুরক্ষিত এবং শান্তিপূর্ণ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রত্যয়

অনলাইন ডেস্ক   

৮ মে, ২০২১ ২১:৩০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পৃথিবীকে আরো সুরক্ষিত এবং শান্তিপূর্ণ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রত্যয়

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে যথাযথ গুরুত্ব ও মর্যাদায় বিশ্ব রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট দিবস পালিত হয়। দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। কর্মসূচির মধ্যে ছিলো জাতীয় ও রেড ক্রিসেন্ট পতাকা উত্তোলন, ভার্চুয়াল আলোচনা সভা, ভলেন্টিয়ার ট্যালেন্ট হান্ট (প্রতিভা অন্বেষণ) ও ভলেন্টিয়ার রিক্রুটমেন্ট ড্রাইভ (স্বেচ্ছাসেবক সংগ্রহ অভিযান) কার্যক্রম। উল্লেখ্য, বিশ্ব রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট দিবসের সকল অনুষ্ঠান স্বাস্থ্যবিধি মেনে সম্পন্ন হয়।

সবাই মিলে একত্রে এই পৃথিবীকে আরও সুরক্ষিত এবং আরও শান্তিপূর্ণ জায়গা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতি ও চেষ্টায় অপ্রতিরোধ্য হিসেবে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয়ে এবছরের বিশ্ব রেড ক্রস এবং রেড ক্রিসেন্ট দিবস এর প্রতিপাদ্যে নির্ধারিত হয় “অপ্রতিরোধ্য”।

আজ শনিবার সকাল ৯ টায় সোসাইটি প্রাঙ্গনে জাতীয় ও রেড ক্রিসেন্ট পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান ও সরকারের সাবেক সচিব মো: নূর-উর রহমান জাতীয় পতাকা ও সোসাইটির মহাসচিব মো: ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন রেড ক্রিসেন্ট পতাকা উত্তোলন করেন। এসময় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উপ-মহাসচিব মো: রফিকুল ইসলামসহ সোসাইটির পরিচালকগন, সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর সকাল ১১টায় ভার্চুয়াল আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ট্রেনিং রুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব;) এটিএম আবদুল ওয়াহ্হাব। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোসাইটির ভাইস চেয়ারম্যান ও সরকারের সাবেক সচিব মো: নূর-উর রহমান। বক্তব্যে রাখেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব মো: ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন, আইসিআরসি বাংলাদেশ প্রধান কাতিয়া ইলিনা লরেন্স, সান্জীব কুমার কাফলে, হেড অব কান্ট্রি অফিস, আইএফআরসি, সোসাইটির যুব ও স্বেচ্ছাসেবক বিভাগের পরিচালক ইমাম জাফর সিকদার, ইউনিট অ্যাফায়ার্স বিভাগের পরিচালক ইকরাম এলাহী চৌধুরী, রেড ক্রিসেন্ট রক্ত কর্মসূচির পরিচালক মো: মিজানুর রহমান, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক সায়মা ফেরদৌসী ও ইয়ুথ চেয়ার মরিয়ম বিবি রৌসনী। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উপ-মহাসচিব মো: রফিকুল ইসলাম। ভার্চুয়াল এই আলোচনা সভায় দেশের ৬৪ জেলার ৬৮টি রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ, কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবকরা অংশ নেয়। এর আগে সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) এটিএম আবদুল ওয়াহ্হাব এর হাতে সম্মানসূচক ক্রেস্ট তুলে দেন সোসাইটির মহাসচিব।

আলোচনা সভার পরপরই একই স্থানে স্বেচ্ছাসেবকদের অংশগ্রহণে ভলেন্টিয়ার ট্যালেন্ট হান্ট (প্রতিভা অন্বেষণ) ও ভলেন্টিয়ার রিক্রুটমেন্ট ড্রাইভ (স্বেচ্ছাসেবক সংগ্রহ অভিযান) বিষয়ক পরপর দুটি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও চট্রগ্রাম রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটসহ বিভিন্ন জেলা ও সিটি রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটসমূহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিশ্ব রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট দিবস পালন করেছে।

প্রধান অতিথি বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) এটিএম আবদুল ওয়াহ্হাব বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এককভাবে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় আমরা সক্ষম হয়েছি। তিনি বলেন, ভ্যাকসিন ই করোনাভাইরাসকে সম্পূর্ণভাবে নির্মূল করতে পারবে। ভ্যাকসিন ছাড়া একে প্রতিহত করা যাবেনা। তাই সকলকে কোভিড-১৯ টিকা গ্রহণ এবং নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

উল্লেখ্য, ১৮২৮ সালের এই দিনে রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট এর প্রতিষ্ঠাতা জীন হেনরী ডুনান্ট সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। এই মহান ব্যক্তিকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করার জন্য প্রতিবছর তার জন্মদিনটিকে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস হিসেবে সারা বিশ্বে উদযাপন করা হয়।



সাতদিনের সেরা