kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ বৈশাখ ১৪২৮। ১০ মে ২০২১। ২৭ রমজান ১৪৪২

করোনায় চাকরি হারিয়েছেন প্রতি তিনজনে একজন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ মে, ২০২১ ০২:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনায় চাকরি হারিয়েছেন প্রতি তিনজনে একজন

করোনা মহামারিতে বাংলাদেশের ৭০ শতাংশ মানুষকে কিছু সময়ের জন্য হলেও বেকার থাকতে হয়েছে। আবার কাজ কাজ করলেও ৬৩ শতাংশই আয় কমার কথা জানিয়েছে। গতকাল সোমবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জনতম জরিপ প্রতিষ্ঠান গ্যালপ প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে। এতে বলা হয়, করোনা মহামারির কারণে বিশ্বজুড়ে প্রতি দুজন মানুষের একজনের আয় কমেছে। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের দেশের মানুষ বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেকে চাকরি হারিয়েছেন, কারো কর্মঘণ্টা কমেছে।

বিশ্বের ১১৭ দেশের তিন লাখ মানুষের ওপর করা এই জরিপে দেখা যায়, অর্ধেক মানুষেরই আয় কমেছে করোনা মহামারির সংকটের কারণে। বৈশ্বিক হিসাবে, আনুমানিক ১৬০ কোটি কর্মক্ষম মানুষের আয় কমেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, আয় কমার এই প্রবণতা থাইল্যান্ডে সর্বোচ্চ ৭৬ শতাংশ এবং সুইজারল্যান্ডে সর্বনিম্ন ১০ শতাংশ মানুষের দেখা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বলিভিয়া, মিয়ানমার, কেনিয়া, উগান্ডা, ইন্দোনেশিয়া, হন্ডুরাস, ইকুয়েডরসহ ৫৪ দেশের প্রায় ৭০ শতাংশ মানুষ জানিয়েছে, তারা করোনা সংকটের আগে যা আয় করত সংকট শুরু হওয়ার পর তার চেয়ে আয় কমেছে। বাংলাদেশের ৬৩ শতাংশ মানুষ তাদের আয় কমার কথা জানিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে এমনটি জানিয়েছে ৩৪ শতাংশ মানুষ।

করোনার সবচেয়ে বড় আঘাত এসেছে সাধারণ কর্মীদের ওপর। বিশেষ করে নারীদের ওপর। যারা খুচরা খাত, পর্যটন এবং খাদ্য সরবরাহের মতো সেবা খাতে কম আয়ে চাকরি করে। গত বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক দাতব্য প্রতিষ্ঠান ওক্সফামের এক জরিপে বলা হয়েছে, করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে নারীদের আয় কমেছে ৮০০ বিলিয়ন ডলার। গ্যালপের জরিপে অংশ নেওয়া অর্ধেকের বেশি মানুষ জানিয়েছে, করোনায় কিছু সময়ের জন্য হলেও তাদের বেকার থাকতে হয়েছে। বিশ্বে এই সংখ্যা দাঁড়াবে ১৭০ কোটি কর্মক্ষম লোক।

বাংলাদেশ, ভারত, জিম্বাবুয়ে, ফিলিপাইন, কেনিয়া এবং এল সালভাদরের ৬৫ শতাংশের বেশি মানুষ জানিয়েছে, কিছু সময়ের জন্য তাদের বেকার থাকতে হয়েছে। এ সংখ্যা নিম্ন ও নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশগুলোতে বেশি। যেমন বাংলাদেশের ৭০ শতাংশ উত্তরদাতা জানিয়েছে, তাদের কিছু সময়ের জন্য হলেও কাজ হারাতে হয়েছে। ভারতে ৬৭ শতাংশ শ্রমিক বা ৫১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ কিছু সময়ের জন্য হলেও চাকরি হারানোর কথা জানিয়েছেন।

জরিপে প্রতি তিনজনে একজন জানিয়েছেন, করোনার কারণে তিনি তাঁর চাকরি বা ব্যবসা হারিয়েছেন। বৈশ্বিক হিসাবে এ সংখ্যা দাঁড়াবে ১০০ কোটির বেশি মানুষ। অস্ট্রিয়া, সুইজারল্যান্ড ও জার্মানিতে প্রতি ১০ জনে একজন বলেছেন, তাঁরা সাময়িকভাবে কাজ বন্ধ রেখেছেন। আর যুক্তরাষ্ট্রে এই সংখ্যা ৩৯ শতাংশ। ফিলিপাইন, কেনিয়া, জিম্বাবুয়ের ৬০ শতাংশ মানুষ তাদের চাকরি হারানো বা ব্যবসা লাটে ওঠার কথা জানিয়েছে। সুইজারল্যান্ডে এই হার ৩ শতাংশ। আর যুক্তরাষ্ট্রে ১৩ শতাংশ।



সাতদিনের সেরা