kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

শিবচরে নৌ-দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারপ্রতি ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ মে, ২০২১ ১৬:৩০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিবচরে নৌ-দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারপ্রতি ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি

মাদারীপুরের শিবচরে কাঠাঁলবাড়ী পুরাতন ঘাটে স্পিডবোট দুর্ঘটনায় ২৬ জন নিহত ও ৫ জন আহত হওয়ার ঘটনায় দায়িদের শাস্তি ও নিহত পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতি পূরণ প্রদানের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

আজ সোমবার এক সংবাদ বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এই দাবি জানান।

তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত লকডাউনের মধ্যেও এত বেশি সংখ্যক যাত্রী নিয়ে স্পিডবোট চলাচলের জন্য ঘাট ইজারাদার, নৌ-পুলিশ, কোস্ট গার্ড, বিআইডাব্লিউটিএ ও সমুদ্র পরিবহন অধিফতর কেউ দায় এড়াতে পারেন না। এ কারণে এসব প্রতিষ্ঠানগুলোর এই ঘাটে মনিটরিংয়ের দায়িত্বরত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ এনে হত্যা মামলা দায়ের করা হোক।    

আমাদের দেশের নৌ-পথ দিন দিন অনিরাপদ হয়ে উঠছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকার নৌ-পথের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করলেও এ খাতে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর উদাসীনতা, দায়িত্বে অবহেলাসহ নানা কারণে নৌ-পথের যাত্রীদের নিরাপত্তা বরাবরই উপেক্ষিত হচ্ছে। একদিকে লকডাউন ও অন্যদিকে কাল-বৈশাখীর এহেন দুর্যোগপূর্ণ ভরা মৌসুমে ৮-১০জন যাত্রী যাতায়াতের ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি স্পিডবোটে লাইফ জ্যাকেট বিহীন ৩০-৩৫ জন যাত্রী নিয়ে যাতায়াত সারাদেশে নৌ-পথের এহেন অবহেলার চিত্র ফুটে উঠেছে।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, বিগত ২০১৮ সাল থেকে সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী এই পর্যন্ত নৌ-পথে ৬০১টি ছোট বড় দুর্ঘটনায় ৭৭৩জন নিহত, ৯১২জন আহত ও ১১৬৬জন নিখোঁজ হয়েছে। পরিসংখ্যানের তথ্য অনুযায়ী ২০১৮সালে ১৫৯টি নৌ-দুর্ঘটনায় ১২৬ জন নিহত, ২৩৪ জন আহত ৩৮৭ জন নিখোঁজ হয়। ২০১৯ সালে ২০৩ টি নৌ-দুর্ঘটনায় ২১৯ জন নিহত, ২৮২ জন আহত, ৩৭৫ জন নিখোঁজ হয়।

২০২০ সালে লকডাউনের মধ্যেও ১৮৩ টি নৌ-দুর্ঘটনায় ৩১৩ জন নিহত, ৩৪২ জন আহত, ৩৭১ জন নিখোঁজ হয়। চলতি বছরে জানুয়ারী মাসে ১৭ টি ছোট বড় নৌ-দুর্ঘটনায় ৩৭ জন নিহত, ১৩ জন আহত, ১১ জন নিখোঁজ হয়। ফেব্রয়ারি মাসে ১৫ টি নৌ-দুর্ঘটনায় ২৫ জন নিহত, ১৯ জন আহত, ১৭ জন নিখোঁজ হয়। মার্চ মাসে ১০ টি নৌ-দুর্ঘটনায় ১৫জন নিহত ১৩ জন আহত, ৩ জন নিখোঁজ হয়। লকডাউনের এপ্রিল মাসে ১৪ টি দুর্ঘটনায় ৩৮ জন নিহত, ৯ জন আহত, ২ জন নিখোঁজের ঘটনা সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে।



সাতদিনের সেরা