kalerkantho

বুধবার । ২৮ বৈশাখ ১৪২৮। ১১ মে ২০২১। ২৮ রমজান ১৪৪২

বাঁশখালীতে শ্রমিক হতাহতের প্রতিবাদে স্কপের কর্মসূচি, কাল বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২০ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাঁশখালীতে শ্রমিক হতাহতের প্রতিবাদে স্কপের কর্মসূচি, কাল বিক্ষোভ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারায় এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক হতাহতের প্রতিবাদে আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ (স্কপ)।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে আগামীকাল বুধবার (২১ এপ্রিল)  সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

আজ মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত স্কপের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সভায় নতুন আন্দোলন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। স্কপ যুগ্ম সমন্বয়কারী শহিদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অংশ নেন মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ, আনোয়ার হোসেন, রাজেকুজ্জামান রতন, কামরুল আহসান, চৌধুরী আশিকুল আলম, নাইমুল আহসান জুয়েল, শাকিল আক্তার চৌধুরী, রিপন চৌধুরী, শামিম আরা, আহসান হাবিব বুলবুল, আবুল কালাম আজাদ, ফিরোজ হোসেন প্রমুখ।

সভায় বাঁশখালী হত্যাকাণ্ডের বিচার বিভাগীয় তদন্ত, কর্তৃপক্ষ-নিরাপত্তারক্ষী-পুলিশসহ শ্রমিক হত্যার জন্য দায়ীদের বিচার, শ্রমিক হয়রানি বন্ধ এবং নিহত ও আহতদের যথাযথ ক্ষতিপূরণের দাবি জানানো হয়। সঠিক তদন্ত এবং দায়ীদের শাস্তি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিক্ষোভ-সমাবেশ, স্বরাষ্ট্র ও শ্রমমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশসহ ধারাবাহিক কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কর্মসূচি সফল করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান।

সভায় লকডাউনের মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সংক্ষিপ্ত পরিসরে ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধ্বসের অষ্টম বার্ষিকী 'গার্মেন্টস শ্রমিক শোক দিবস' এবং পহেলা মে 'আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস' পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া স্কপের যুগ্ম সমন্বয়ক নুর কুতুব মান্নানের রোগমুক্তি কামনা করা হয়।

সভায় দৈনিক কর্মঘণ্টা সংশ্লিষ্ট শ্রম আইনের ধারাসমূহ ৬ মাসের জন্য স্থগিত করে শ্রম মন্ত্রণালয়ের মজুরি বোর্ড শাখার জারি করা প্রজ্ঞাপন বাতিলের আহ্বান জানানো হয়। শ্রমিকের স্বাস্থ্যঝুঁকি বিবেচনায় না নিয়ে শুধু মালিকের মুনাফা নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব হতে পারে না, করোনা উচ্চ সংক্রমণের সময় এই প্রজ্ঞাপন শ্রমিকদের স্বাস্থ্যঝুঁকি আরো বাড়াবে বলে ঐক্যমত পোষণ করা হয়।



সাতদিনের সেরা