kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ বৈশাখ ১৪২৮। ৬ মে ২০২১। ২৩ রমজান ১৪৪২

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের বিবৃতি

সিএনজির ভেতরে তরুণীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের শাস্তি দাবি

অনলাইন ডেস্ক   

১৫ এপ্রিল, ২০২১ ২০:৫৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সিএনজির ভেতরে তরুণীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের শাস্তি দাবি

হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার গুনই গ্রামের তরুণীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দাবি জানিয়েছে।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মহিলা পরিষদ জানিয়েছে, গত ১৩ এপ্রিল বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ মাধ্যমে জানতে পারি যে, হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার গুনই গ্রামে যাওয়ার সময় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে নির্জন স্থানে তরুণীকে সিএনজির ভেতরে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত ১১ এপ্রিল বানিয়াচং উপজেলার গুনই গ্রামে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করলে এসময় সিএনজিচালকসহ দুই যুবক চুনারুঘাট উপজেলার ঝিকুয়া গ্রামের রেনু মিয়ার ছেলে সুজন মিয়া (২৫), কাছম আলীর ছেলে সায়মন আহমেদ শামীম (২০) তাকে ফুসলিয়ে হবিগঞ্জে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তিনি তাদের কুমতলব বুঝতে পারেন। একপর্যায়ে একটি টমটমে (ইজিবাইকে) উঠে হবিগঞ্জের উদ্দেশে রওনা লে কলিমনগরের স্পিডব্রেকারের কাছে এসে টমটমের চার্জ শেষ হয়ে যায়। এদিকে ওই সিএনজি অটোরিকশাটি ইজিবাইকের পিছু ছুটে। কলিমনগরে পৌঁছে সিএনজিচালক জনি মিয়া কৌশলে ওই তরুণীকে তার সিএনজি অটোরিকশাতে তুলে নেয়। ওই সিএনজি অটোরিকশাতে শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রিজে পাওয়া যুবকরাও ছিল। পরে সিএনজিচালক দ্রুত চালিয়ে ধুলিয়াখাল-মিরপুর সড়কে প্রবেশ করে লস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদ অফিসের অদূরে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ওই তরুণীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে একের পর এক তিনজন ধর্ষণ করে। সিএনজি চালকসহ দুই যুবক ওই তরুণীকে নিয়ে হবিগঞ্জে আসার পথে চরহামুয়া পয়েন্টে আসামাত্র দোকানপাট দেখে চিৎকার শুরু করলে স্থানীয় লোকজন ঘেরাও করে সিএনজিসহ দুই ধর্ষককে আটক করেন।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বাস্তব কাজের অভিজ্ঞতায় লক্ষ্য করছে যে, বর্তমানে রাস্তা-ঘাট, গণপরিবহণসহ সর্বত্র নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে নারী ও শিশুর নিরাপত্তা চরমভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে এবং নারী ও শিশুর স্বাধীন চলাচল অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। প্রতিনিয়ত নারীরা যৌন নিপীড়ন, ধর্র্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ ও হত্যাসহ নৃশংস নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

ওই ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানায় মহিলা পরিষদ।

বিবৃতিতে ঘটনার শিকার তরুণীর সুচিকিৎসা ও তার নিরাপত্তার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানায় ও নারীর স্বাধীন চলাচল নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে সরকারের নিকট প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের বিশেষ দাবি জানায়। সেইসাথে নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ এবং সামাজিক অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সারাদেশে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানায় সংগঠনটি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।



সাতদিনের সেরা