kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

নির্মূল কমিটি ও ককাসের যৌথ সভা

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে সহিংসতা তদন্তে গণকমিশন গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ এপ্রিল, ২০২১ ২১:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে সহিংসতা তদন্তে গণকমিশন গঠন

স্বাধীনতার রজত জয়ন্তী উৎসবের দিনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সুনামগঞ্জের শাল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনা অনুসন্ধানে ‘গণতদন্ত কমিশন’ গঠন করা হয়েছে। এই কমিশন মাঠ পর্যায়ে তদন্ত করে সুপারিশসহ প্রতিবেদন ‘শ্বেতপত্র’ আকারে প্রকাশ করবে।

সোমবার একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি এবং জাতীয় সংসদের সংখ্যালঘু ও আদিবাসী বিষয়ক ককাসের যৌথ উদ্যোগে গণতদন্ত কমিশনের প্রথম সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২২ জুলাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কমিশনের প্রতিবেদন সরকার ও জনগণের অবগতির জন্য প্রকাশ করা হবে।

‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী বানচালে হেফাজত-জামায়াতের মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস তদন্তে গণ কমিশনের প্রথম সভা’ রাজধানীর মহাখালীতে নির্মূল কমিটির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের সভাপতিত্বে সভায় কমিশনের সদস্য রাজনীতিবিদ রাশেদ খান মেনন এমপি, হাসানুল হক ইনু এমপি, ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, কমিশনের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ, সমন্বয়কারী ও নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বলা হয়, এই কমিশন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনকে কেন্দ্র করে মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক অপশক্তি সারা দেশে যে সন্ত্রাসী তাণ্ডব পরিচালনা করেছে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওয়াজের নামে জাতির পিতা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং ভিন্নধর্ম, ভিন্নমত ও ভিন্ন জীবনধারায় বিশ্বাসীদের বিরুদ্ধে যে ঘৃণা-বিদ্বেষমুলক বক্তব্য প্রদান করেছে তা মাঠপর্যায়ে তদন্ত করে শ্বেতপত্র আকারে প্রকাশ করবে। এ লক্ষ্যে সারা দেশে ২০২০ সালের ১ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ওয়াজের নামে প্ররোচনাসহ যে সব মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের ঘটনা ঘটেছে, তার তথ্যাদি ভুক্তভোগী, প্রত্যক্ষদর্শী এবং অনুসন্ধানী সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মীদের লিখিতভাবে নির্মূল কমিটির কার্যালয়ে পাঠাতে অনুরোধ করা হয়েছে। বার্তা প্রেরণের ঠিকানা অর্পণ নিবাস, গ-১৬ মহাখালী, ঢাকা-১২১২। এ ছাড়া সংগঠনের ই-মেইলে তথ্যাদি পাঠানো যাবে।



সাতদিনের সেরা