kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

১৪ এপ্রিল থেকে ৭ দিন ফ্লাইট বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ এপ্রিল, ২০২১ ০২:৫০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১৪ এপ্রিল থেকে ৭ দিন ফ্লাইট বন্ধ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দ্বিতীয় দফার ‘কঠোর লকডাউনে’র সময় আন্তর্জাতিক ফ্লাইটও বন্ধ থাকবে। আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সাত দিন সর্বাত্মক লকডাউন বাস্তবায়নে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। তবে এ সময় অনুমতি নিয়ে কার্গো বিমান, স্পেশাল/চার্টার্ড ফ্লাইট চলাচল করতে পারবে। বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান কালের কণ্ঠকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

বেবিচক কর্মকর্তারা জানান, করোনা মহামারির ঊর্ধ্বগতি প্রতিরোধে আগামী বুধবার থেকে দ্বিতীয় দফায় দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন শুরু হতে যাচ্ছে। এ কারণে আন্তর্জাতিক রুটে বিমান চলাচল বন্ধ রাখার এ সিদ্ধান্ত নেয় বেবিচক।

এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান বলেন, ‘১৩ তারিখ দিবাগত রাত ১টা থেকে সাত দিন যাত্রীবাহী সব ধরনের ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে আমরা প্রজ্ঞাপন দিয়ে দিয়েছি। এ ছাড়া ডমেস্টিক ফ্লাইট এখন বন্ধ আছে, বন্ধ থাকবে। সরকারি যে প্রজ্ঞাপন আসবে, তাতে এ বিষয়ে উল্লেখ থাকবে।’

এদিকে বর্তমানে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বন্ধ রয়েছে। গত ৫ এপ্রিল থেকে সরকার ঘোষিত কঠোর নিষেধাজ্ঞা শুরুর পর থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ রয়েছে। দ্বিতীয় দফার লকডাউনে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বন্ধ থাকবে। তবে লকডাউন বাড়লে ফ্লাইট বন্ধের নিষেধাজ্ঞাও বাড়তে পারে বলে বেবিচক সূত্রে জানা গেছে। 

হঠাত্ করে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। দেশে-বিদেশে অনেকেই জরুরি কাজে আটকা পড়বেন। ১৪ তারিখ থেকে যাঁদের টিকিট কাটা ছিল তাঁরা আগে দেশে ফিরতে কিংবা বিদেশ যেতে বিমানের টিকিট পাচ্ছেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা এয়ারলাইনসগুলোকে আগেই ধারণা দিয়ে রেখেছিলাম, হয়তো ফ্লাইট বন্ধ করার প্রয়োজন হতে পারে।’  

গত বছর মার্চে দেশে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে বন্ধ করে দেওয়া হয় সব ধরনের ফ্লাইট। পরে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলে জুলাই থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চালু করা হয়। এরপর ক্রমান্বয়ে চালু হয় আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলো।

দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে গত ৩ এপ্রিল থেকে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের সব দেশের সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় বেবিচক। এটি ছাড়াও বিশ্বের আরো ১২টি দেশের সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

ইউরোপের দেশগুলো ছাড়া বাংলাদেশে ফ্লাইট বন্ধ আর্জেন্টিনা, বাহরাইন, ব্রাজিল, চিলি, জর্ডান, কুয়েত, লেবানন, পেরু, কাতার, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক ও উরুগুয়ের।



সাতদিনের সেরা