kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

কারখানা চালু রাখার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ স্কপের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ এপ্রিল, ২০২১ ২০:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কারখানা চালু রাখার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ স্কপের

ফাইল ফটো

করোনাভাইরাস ঠেকাতে কঠোর নিষেধাজ্ঞা চলাকালে কারখানা চালু রাখার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে শ্রমিক-কর্মচারী ঐক্যপরিষদ (স্কপ)। স্কপের কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় নেতারা বলেছেন, শ্রমিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উৎপাদনের চাকা সচল রাখলেও তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। গণপরিবহন বন্ধ রেখে কারখানা চালু রাখা হলেও শ্রমিকদের হয়রানিমুক্ত যাতায়াত নিশ্চিত করতে ও তাদের অতিরিক্ত ব্যয়ভার কিভাবে বহন করা হবে, তা সরকারি ঘোষণায় বলা হয়নি।

সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। স্কপের যুগ্ম সমন্বয়ক সহিদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক নঈমুল আহসান জুয়েল, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি কামরুল আহসান, ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরি আশিকুল আলম, জাতীয় ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, লেবার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শাকিল আক্তার চৌধুরী, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব বুলবুল, ফ্রি ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের যুগ্ম সম্পাদক পুলক রঞ্জন ধর, জাতীয় শ্রমিক লীগের ট্রেড ইউনিয়ন বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ হোসেন প্রমুখ।

সভায় নেতারা স্কপ ঘোষিত ৯ দফা আদায়ে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে দেশের পাঁচ কোটির অধিক অপ্রাতিষ্ঠানিক শ্রমিক, যা মোট শ্রমশক্তির ৮০ শতাংশের বেশি, তারা দৈনিক উপার্জনের ওপর নির্ভরশীল। লকডাউনে কর্মহীন হয়ে এই শ্রমিকরা চরম অসহায় হয়ে পড়বেন। তাদের জন্য নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তা প্রদানের দাবি জানান তারা।

নেতারা করোনাকালে উৎপাদনকাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের ঝুঁকিভাতা, কর্মস্থলে স্বাস্থ্যবিধির পূর্ণ প্রতিপালনসহ করোনায় আক্রান্ত শ্রমিকের চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ ব্যয় সংশ্লিষ্ট শিল্প মালিক ও সরকারকে বহন করার জোর দাবি জানান। একই সঙ্গে করোনার অজুহাতে শ্রমিক-কর্মচারীদের কোনো ধরনের কর্মচ্যুতি সহ্য করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তারা।
সভায় জাতীয় নিম্নতম মজুরি ২০ হাজার টাকা ঘোষণা, অবাধ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার, আউটসোর্সিং নয়, স্থায়ী নিয়োগপ্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করাসহ ৯ দফা দাবিতে আগামী ৯ এপ্রিল আহূত শ্রমিক সমাবেশের নির্ধারিত কর্মসূচি করোনা পরিস্থিতির অবনতি ও লকডাউনের কারণে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে এই শ্রমিক সমাবেশ করার ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা