kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

আরো ৩৩ মৃত্যু শনাক্ত ৮ মাসে সর্বোচ্চ ৩৭৩৭

এলো আরো ১২ লাখ টিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২৭ মার্চ, ২০২১ ০৩:২০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরো ৩৩ মৃত্যু শনাক্ত ৮ মাসে সর্বোচ্চ ৩৭৩৭

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর এই হিসাবের সঙ্গে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে তিন হাজার ৭৩৭ জন। গত আট মাসের মধ্যে এটাই এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে দুই হাজার ৫৭ জন।

সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত দেশে শনাক্ত হয়েছে পাঁচ লাখ ৮৮ হাজার ১৩২ জন। এর মধ্যে মারা গেছে মোট আট হাজার ৮৩০ জন ও সুস্থ হয়েছে পাঁচ লাখ ৩১ হাজার ৯৫১ জন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১৩.৬৯ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১২.৯৫ শতাংশ। সুস্থতার হার ৯০.৪৫ শতাংশ ও মৃত্যুহার ১.৫০ শতাংশ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ওই তথ্য অনুসারে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৩ জনের মধ্যে ২১ জন পুরুষ ও ১২ জন নারী। যাঁদের বয়স যথারীতি ২৯ জনের ৫১ বছরের ওপরে এবং বাকি চারজনের ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে। ৩৩ জনের মধ্যে ২৬ জন মারা গেছেন ঢাকায়, ছয়জন চট্টগ্রামে এবং একজন রাজশাহীতে। একজন মারা গেছেন বাড়িতে এবং বাকি ৩২ জন বিভিন্ন হাসপাতালে।

এদিকে গতকাল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঢাকায় পৌঁছার পর দুপুর দেড়টার দিকে একটি ফ্লাইটে ভারত থেকে ১২ লাখ ডোজ করোনাভাইরাসের টিকা ঢাকায় এসে পৌঁছেছে, যা পরে বিমানবন্দর থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তেজগাঁও এলাকার সংরক্ষণাগারে নিয়ে রাখা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। এ নিয়ে দেশে মোট করোনাভাইরাসের টিকা এসেছে এক কোটি দুই লাখ ডোজ। এর মধ্যে ৩২ লাখ ডোজ টিকা উপহার হিসেবে দিয়েছে ভারত সরকার। বাকি ৮০ লাখ ডোজ এসেছে সরকারের সঙ্গে ক্রয়চুক্তির ভিত্তিতে বেক্সিমকো ফার্মার মাধ্যমে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে। যার সবটাই অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার আবিষ্কৃত এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত টিকা। বেক্সিমকো ও সেরামের সঙ্গে চুক্তি অনুসারে ছয় মাসের মধ্যে প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ করে তিন কোটি ডোজ টিকা বাংলাদেশে আসার কথা। কিন্তু এ পর্যন্ত বেক্সিমকো সেরাম থেকে দুই দফায় ৮০ লাখ ডোজ টিকা এনেছে। অথচ গত তিন মাসে দেড় কোটি ডোজ টিকা হাতে পাওয়ার কথা ছিল ক্রয়চুক্তির আওতায়। এদিকে এরই মধ্যেই ভারতে আবার টিকা রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ায় কিভাবে বা কবে নাগাদ বাকি টিকা আসবে তার নিশ্চয়তা এখনো সংশ্লিষ্ট কেউ দিতে পারছেন না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা