kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

'বাংলাদেশ ও ভুটান সহযোগিতার নতুন ক্ষেত্র খুঁজতে পারে'

অনলাইন ডেস্ক   

২৫ মার্চ, ২০২১ ০১:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বাংলাদেশ ও ভুটান সহযোগিতার নতুন ক্ষেত্র খুঁজতে পারে'

বাংলাদেশ এবং ভুটান দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইটি), কৃষি, হর্টিকালচার, ট্যুরিজম এবং মৎস্যসহ আরো নতুন নতুন সহযোগিতার ক্ষেত্র খুঁজে বের করতে পারে।

বাংলাদেশ সফররত ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিং বুধবার বিকেলে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি সফররত বিদেশি অতিথিদের বলেন, দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য, কানেকটিভিটি, শিক্ষা, সাংস্কৃতিক বিনিময়, জনগণের পর্যায়ে যোগাযোগ এবং পর্যটনের ক্ষেত্রে চমৎকার সহযোগিতা বিরাজ করছে। তিনি বলেন, দুটি দেশই আইসিটি, কৃষি, হর্টিকালচার এবং মৎস্যসহ আরো নতুন সহযোগিতার ক্ষেত্র খুঁজে বের করতে পারে।

রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নাল আবেদীন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ভুটানের সমর্থনের কথা স্মরণ করে ভুটান সরকার এবং সেদেশের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ভুটান বাংলাদেশের খুবই বিশ্বস্ত বন্ধু। ভুটানের সঙ্গে বাংলাদেশের চমৎকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক রয়েছে এবং এই সম্পর্ক দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বাংলাদেশের দুটি উৎসব বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উৎসবে যোগ দেওয়ায় ভুটানের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং ঐতিহাসিক দুটি উৎসবে যোগ দিতে বাংলাদেশে তিন দিনের সরকারি সফরে গতকাল সকালে ঢাকা আসেন।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ভুটানে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করায় সে দেশের সরকার ও জনগণকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান। দেশটিতে হাজার হাজার প্রদীপ জ্বালিয়ে এবং স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে উৎসব পালন করা হয়।

আনুষ্ঠানিক দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শুরুর আগে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদকে একটি স্মারক ডাকটিকিট উপহার দেন।

বাংলাদেশে এই ঐতিহাসিক উৎসবে ডা. শেরিংকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য তিনি বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বিভিন্ন সেক্টরে বিশেষ করে আর্থ-সামাজিক খাত এবং নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির প্রশংসা করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বঙ্গভবনের সংশ্লিষ্ট সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা