kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন চেয়ে হাইকোর্টে রিট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মার্চ, ২০২১ ১৬:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন চেয়ে হাইকোর্টে রিট

ফাইল ফটো

গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ সামসুল হক রিপন সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিস্ট শাখায় এ রিট আবেদন দাখিল করেছেন। রিট আবেদনে এডহক কমিটি গঠনের মাধ্যমে গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না সেজন্য রুল জারির আরজি জানানো হয়েছে। নিয়মিত আদালত খুললে এ আবেদনটি শুনানির জন্য হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মেহেদী হাসান।

রিট আবেদনে সমাজ কল্যাণ সচিব, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক, গাজীপুর জেলার সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক ও গাজীপুর জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে বিবাদী করা হয়েছে।

রিট আবেদনে বলা হয়, গাজীপুর প্রেসক্লাবের সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৯ সালের ২০ এপ্রিল। প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতিবছর বার্ষিক সাধারণসভা শেষে নির্বাচন হবার কথা। নির্ধারিত মেয়াদ শেষে ২০১৯-২০ সালের কমিটি পরবর্তী কমিটি(২০২০-২১) গঠনের জন্য একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করে ২০২০ সালের ৯ মার্চ। একইসঙ্গে ২০২০ সালের ১০ এপ্রিল ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচনী তফসিল ঘোষনা করা হয়। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের প্রেক্ষাপটে গতবছর ১৯ মার্চ সব ধরণের ক্লাবের কার্যক্রম বন্ধ করে গাজীপুর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন। ওই গণবিজ্ঞপ্তিতে গাজীপুর জেলায় সবধরণের সভাসমাবেশ, সেমিনার, সামাজিক অনুষ্ঠান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সকল ধরণের ধর্মীয় গণজমায়েত স্থগিত করা হয়। ফলে গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। সরকারি এই সিদ্ধান্তের পর প্রেসক্লাব পরিচালনা কমিটি নির্বাচনসহ সকল কার্যক্রম স্থগিত করে গতবছর ২৭ এপ্রিল। পরবর্তীতে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে আসলে ওই কমিটি নির্বাচন করার জন্য গতবছর ২৯ ডিসেম্বর গাজীপুর জেলা প্রশাসক ও জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপপরিচালকের কাছে আবেদন করেন গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ সামসুল হক রিপন। কিন্তু সংশ্লিস্টরা ওই আবেদনে সাড়া না দেওয়ায় গত ১০ মার্চ সংশ্লিস্টদের প্রতি আইনি নোটিশ দেওয়া হয়। এরপরও নোটিশের জবাব না দেওয়ায় রিট আবেদন করা হয় বলে জানান রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মেহেদী হাসান।



সাতদিনের সেরা