kalerkantho

সোমবার । ২৯ চৈত্র ১৪২৭। ১২ এপ্রিল ২০২১। ২৮ শাবান ১৪৪২

শেষ হলো ডিআরইউ'র শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মার্চ, ২০২১ ২০:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেষ হলো ডিআরইউ'র শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক উৎসব

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্য সন্তানদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো ‘শিশু-কিশোর সাংস্কৃতিক উৎসব-২০২১।’ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে সংগঠনের পূর্বঘোষিত মাসব্যাপী কর্মর্সূচীর অংশ হিসেবে ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবসে’ দিনব্যাপী চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও গানের প্রতিযোগিতা শেষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

বুধবার সকালে ডিআরইউ’র নসরুল হামিদ মিলনায়তনে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শুরু হয় দিনব্যাপী উৎসব। বিকেলে সাগর-রুনী মিলনায়তনে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম। অনুষ্ঠানে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন (সঙ্গীতে) সুরকার, গীতিকার ও সঙ্গীত পরিচালক মান্নান মোহাম্মদ, ইথুন বাবু ও হাসান মাহমুদ। (আবৃত্তিতে) আবৃত্তি শিল্পী ও সংগঠক মাসুম আজিজুল বাসার ও আদ্রিতা সরকার। (চিত্রাঙ্কনে) বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন চিত্রশিল্পী মনিরুল ইসলাম মনির ও হাসানুজ্জামান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানী, সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান, সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাইনুল হাসান সোহেল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাইদুর রহমান রুবেল, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজান চৌধুরী, ক্রীড়া সম্পাদক মাকসুদা লিসা এবং কার্যনির্বাহী সদস্য এম এম জসিম ও রহমান আজিজ।

অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন- ক-বিভাগে সঙ্গীতে রানা তাবাসসুম তীর্ণা, প্রজন্ম প্রকৃতি প্রাশ্মিক, সানদিহা জাহান দিবা ও অংকন দাস, আবৃত্তিতে আনান মুস্তাফিজ, প্রজন্ম প্রকৃতি প্রাশ্মিক ও জান্নাতুল বারিষা বিনতে বাতেন এবং চিত্রাঙ্কনে মোস্তফা নূর মাশরুর, অংকন দাস ও আম্মার সামী।

খ-বিভাগে সঙ্গীতে অনুভব আলম প্রান্ত, মুবাশ্শিরা মালিহা, আরিশা আরিয়ান, আবৃত্তিতে আরিশা আরিয়ানা, নাজিফা চৌধুরী (তাহা) ও ইন্দুলেখা অগ্নি এবং চিত্রাঙ্কনে রানা তাবাসসুম তীর্ণা, আলিহা মানসুরা আহমেদ ও রোবাইদা খান এষা।
গ-বিভাগে সঙ্গীতে অনুমৃতা আলম প্রজ্ঞা, অংকিতা দাস ও সময় কৃষ্টি সরকার, আবৃত্তিতে অংকিতা দাস, আনিসা আনজুম ও নূর সাহিফা শৈলী এবং চিত্রাঙ্কনে অংকিতা দাস, নূর সাহিফা শৈলী ও অনুমৃতা আলম প্রজ্ঞা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় লাকী ইনাম শিশু-কিশোরদের সৎ ও আত্মপ্রত্যয়ী হয়ে গড়ে ওঠার আহবান জানিয়ে বলেন, শিশু-কিশোরদের সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে দেশ-ইতিহাস-ঐতিহ্য জানতে হবে। এই শিশুরাই আগামীতে দেশের নেতৃত্ব দেবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা