kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের অনুমোদনবিহীন ৬ টাওয়ার জব্দ

ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্ক সিলগালা

অনলাইন ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের অনুমোদনবিহীন ৬ টাওয়ার জব্দ

টেলিকম অপারেটর রবি, বাংলালিংক ও টেলিটকের অনুমোদনবিহীন ৬ টাওয়ার জব্দ করে বাজেয়াপ্ত করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর নিউ মার্কেট সুপার মার্কেট দক্ষিণ (প্রকাশ নিউ মার্কেট) ডিএসসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানজিলা কবির ত্রপা এই অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে মার্কেটের ছাদে অনুমোদনহীনহীনভাবে স্থাপিত মোবাইল ফোন অপারেটর রবি'র ৪টি, বাংলালিংকের ১টি এবং টেলিটকের ১টি টাওয়ার জব্দ করে বাজেয়াপ্ত করা হয়।

অভিযানকালে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন ও প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক উপস্থিত ছিলেন।

অভিযান প্রসঙ্গে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন বলেন, 'সিটি করপোরেশন আদর্শ কর তফসিল, ২০১৬ অনুযায়ী করপোরেশন এলাকায় মোবাইল টাওয়ার স্থাপনের ক্ষেত্রে বাড়ি/স্থাপনা মালিকের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তিপত্রে উল্লেখকৃত ভাড়ার ছয় ভাগের এক ভাগ হারে ডিএসসিসিকে কর প্রদানের বিধান রয়েছে। কিন্তু টেলিকম অপারেটর রবিকে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার টেলিফোনে এবং ছয় বার পত্র প্রেরণ করে ‘বাড়ি/স্থাপনা মালিকের সঙ্গে তাদের সম্পাদিত ভাড়ার চুক্তিপত্র’ প্রেরণের জন্য বলা হয়। কিন্তু অদ্যবধি রবি’র তরফ থেকে এ বিষয়ে কোনো প্রত্যুত্তর দেওয়া হয়নি।'

রাসেল সাবরিন আরো বলেন, 'রবি’র পক্ষ হতে ডিএসসিসি এলাকায় শুধু ৮১টি টাওয়ার রয়েছে বলে আমাদেরকে প্রাথমিকভাবে জানানো হলেও মাঠের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। এয়ারটেল রবি’র সঙ্গে একীভূত হওয়ার পর তাদের সেই টাওয়ারের সংখ্যা আরো কয়েকগুণ বেশি বলে প্রতীয়মান। তাই, রবি’র টাওয়ার জব্দে আমরা মঙ্গলবার অভিযান পরিচালনা করি।

আমাদের কাছে প্রদেয় টাওয়ারের হিসেবে নিউ সুপার মার্কেট দক্ষিণে রবি’র একটি টাওয়ার থাকার কথা থাকলেও সেখানে গিয়ে আমরা চারটি টাওয়ার দেখতে পাই। এছাড়াও অভিযানকালে বাংলালিংকের ১টি এবং টেলিটকের ১টি অনুমোদনবিহীন টাওয়ার সেখানে আমরা দেখতে পাই। তাই, রবি’র ৪টি, বাংলালিংকের ১টি এবং টেলিটকের ১টি অনুমোদনবিহীন টাওয়ার আমরা জব্দ করে বাজেয়াপ্ত করেছি।'

এদিকে গত ১৪ মার্চ ডিএসসিসির মালিকানাধীন স্বামীবাগ এলাকায় ‘ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্কে’ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় অনুমতি ছাড়া পার্ক চালু রাখায় পার্কের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং পার্কের মূল দরজাসহ সকল দোকান তালাবদ্ধ ও সিলগালা করে দেওয়া হয়।
 
উল্লেখ্য, গত বছরের ১৯ অক্টোবর ডিএসসিসি এলাকায় মোবাইল টাওয়ার ব্যবহার বাবদ গ্রামীণ ফোন ডিএসসিসিকে ৯ কোটি ৬৩ লাখ ৭ হাজার ৩৮৫ টাকা সমুদয় বকেয়া পরিশোধ করে। 
এছাড়াও টেলিকম অপারেটর রবি গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের বকেয়া হিসেবে ১ কোটি ৫০ লাখ ৫৪ হাজার ৫৬৮ টাকা এবং এ বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭-১৮ থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৪ কোটি ৪০ লাখ ৮১ হাজার ১৮০ টাকা বকেয়া পরিশোধ করে।
 
আরো উল্লেখ্য যে, ডিএসসিসির মালিকানাধীন এই জায়গায় ‘ভায়া মিডিয়া সার্ভিস লিমিটেড’-এর সঙ্গে ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্ক হিসেবে পার্ক পরিচালনার জন্য সঙ্গে তিন বছর মেয়াদী ইজারা (লিজ) দেওয়া হয় যা ২০০৫ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়। ডিএসসিসি (তৎকালীন ডিসিসি) সেই কম্পানির সঙ্গে ইজারার মেয়াদ নতুন করে নবায়ন না করলেও ভায়া মিডিয়া সার্ভিস লিমিটেড পরবর্তীতে ২০০৮ সালে হাইকোর্টে সিভিল পিটিশন ফর লিভ টু আপিল দায়ের করেন। 

পরবর্তীতে আপিল বিভাগ করপোরেশনের পক্ষে সেই মামলা নিষ্পত্তি করে। কিন্তু তারপরও দীর্ঘ সময় সেই জায়গা পার্ক কর্তৃপক্ষ ডিএসসিসিকে হস্তান্তর না করায় অবশেষে গত রবিবার সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ডিএসসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে সেই ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্ক সিলগালা করা হয়।



সাতদিনের সেরা